মেইন ম্যেনু

আর নগ্ন ছবি ছাপবে না ‘প্লেবয়’

বিশ্বের সেরা অ্যাডাল্ট ম্যাগাজিন প্লেবয় আজ থেকে আরো অর্ধ শতাব্দী আগেই রাখঢাক না রেখে কভার ছবি ছাপতো। এখন সেরকম ছবি খুব বেশি অস্বাভাবিক না। কিন্তু তারপরও ভোল পাল্টে উল্টোপথে হাটা দিয়েছে ম্যাগাজিনটি। প্রধান সম্পাদক হফ হাফনার জানিয়ে দিয়েছেন, নারীদের সাহসী ছবি ছাপা হবে ম্যাগাজিনে। কিন্তু সম্পূর্ণ নগ্ন ছবি আর ছাপা হবে না।

১৯৫৩ সালে প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য এই ঝকঝকে অ্যাডাল্ট ম্যাগাজিনটির প্রথম ইস্যুর কভার পেজের জন্যই শ্যুট করেছিলেন হলিউড হার্টথ্রব মেরিলিন মনরো। এতেই পাঠকদের মনে জায়গা করে নিয়েছিল ‘প্লেবয়’। হলিউডের মডেল ও উঠতি নায়িকাদের কাছে প্লেবয়-এর কভার পেজে জায়গা পাওয়া মানেই নিশ্চিত সফল ক্যারিয়ারের সিড়িতে পা দেয়া। তবে সম্প্রতি ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার জেরে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে ম্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ।

ম্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ দেখছে, গত কয়েক বছরে প্লেবয়-এর সার্কুলেশন ব্যাপক হারে পড়ে গেছে। ১৯৭৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ম্যাগাজিনের সার্কুলেশন ৫৬ লাখ কমে বর্তমানে তা মাত্র ৮ লাখে দাঁড়িয়েছে। সার্কুলেশনের এই বিপুল পতনের কারণ হিসেবে কর্তৃপক্ষ ইন্টারনেটের সহজলভ্যতাকেই দায়ী করছেন। কারণ ইন্টারনেট পর্নোগ্রাফিকে হাতের মুঠোয় করে দিয়েছে। ফলে প্লেবয় কেনার ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছে না মার্কিন পুরুষরা। দেখা যাচ্ছে, ম্যাগাজিনে ন্যুড ছবি ছাপার থেকে ওয়েবে তা ছাপলে ট্র্যাফিক হু-হু করে বেড়ে যাচ্ছে।

এর আগে গত মার্চেই ম্যাগাজিনের কভারে ব্যাপক বদল আনে ম্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ। কিন্তু গতমাসে সম্পূর্ণ নগ্ন ছবি ছাপানো বন্ধ করার প্রস্তাব প্রধান সম্পাদক হফ হাফনারকে দেন প্লেবয়-এর সম্পাদকীয় বিভাগের অন্যতম কর্তা কোরি জোনস। ৮৯ বছরের হাফনার সেই প্রস্তাব মেনে নিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই