মেইন ম্যেনু

আল্লাহ তায়ালার অসাধারণ সৃষ্টি, ঘোড়ার পিঠে ঘোড়া!

শিরোনাম দেখে হয়তো ভাবছেন ঘোড়ার পিঠে চড়ে আরেকটি ঘোড়া চলাফেরা করে। আসলে ব্যাপারটি কিন্ত তা নয়। মূলত যুক্তরাজ্যের উত্তর ইয়র্কশায়ারের রবিনহুড বে তে ফ্লাইং হল রাইডিং স্কুলে চলতি বছরের মে মাসে যে ঘোড়ার শাবকটি জন্ম নিয়েছে, সেটি সত্যিই আজব ধরণের। দ্য ভিঞ্চি বা ভিনি নামের ওই শাবক জন্মেছে দুর্লভ এক জন্মদাগ নিয়ে। প্রথমবার দেখলে মনে হবে ওই শাবকের পিঠে আরেকটি সাদা রঙের ঘোড় বসে আছে। এছাড়া ভিঞ্চির নিচের অংশে সাদা হার্ট আকৃতির একটি চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান ওয়েন্ডি। সৃষ্টিকর্তার অপরূপ সৃষ্টি এই ঘোড়াটি সত্যিই অসাধারণ।

শাবকটির বামপাশে গলার খানিক নিচে রয়েছে সাদা রঙের ঘোড়ার মাথার আকৃতির একটি জন্মদাগ। ভিঞ্চির গায়ের রং বাদামি। ভিঞ্চি এই জন্মদাগ বরাবর ঘাড়ের কেশরও সাদা। এক নজরে মনে হয় যেন তার গায়ে ছুটে চলা কোনো সাদা ঘোড়ার ট্যাটু এঁকে দেওয়া হয়েছে। আর তাই মালিকেরা বিশ্বখ্যাত চিত্রশিল্পী লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির নামে ঘোড়া শাবকটির নাম রেখেছেন।

রাইডিং স্কুলের পরিচালক ওয়েন্ডি বালমার জানান, আমি ভিঞ্চির মাকে মূল্যহ্রাসে কিনেছিলাম। তবে সে যে অন্তঃস্বত্ত্বা ছিল তা আমার জানা ছিল না। তাই খানিক আশ্চর্যই হয়েছি।

ওয়েন্ডি ভিঞ্চির জন্মতে প্রথমে খুব একটা খুশি না হলেও, ছোট বাদামি এ ঘোড়ার বন্ধুভাবাপন্ন আচরণে স্কুলের ‍শিশুরা তাকে বেশ পছন্দ করে।

ওয়েন্ডি জানান, বাদামি ঘোড়াদের গায়ে অদ্ভুত দাগ থাকে। তবে এ ধরনের দাগ সাধারণত দেখা যায় না।






মন্তব্য চালু নেই