মেইন ম্যেনু

আশ্বাসেও পূরণ হয়নি দাবি, ফের আন্দোলনে নার্সরা!

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিমের আশ্বাস পেলেও দাবি পূরণ হয়নি ডিপ্লোমা বেকার নার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিবিএনএ)।

রোববার (১৪ মার্চ) সংবাদ সম্মেলন করে ক্ষুদ্ধ বেকার নার্সরা কঠোর কর্মসূচি দেয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে ঘোষণা দেন।

শনিবার বিডিবিএন’র মহাসচিব ফারুক হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (বিপিএসসি) নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হবে বলে মে দিবসের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আশ্বাস দেন। কিন্তু পরে তা উপেক্ষা করে পিএসসি ৯ মে পরিক্ষার তারিখ নির্ধারণ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। ফলে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে হতভম্ব বেকার নার্সদের পক্ষ থেকে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করার জন্য রোববার সকাল ১১টায় রাজধানীর রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘যেহেতু স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দেয়া আশ্বাস পিএসসির বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে শুভঙ্করের ফাঁকিতে পরিণত হয়েছে, আমাদের এখন আন্দোলনের যে পর্যায়ে আমরা থেমেছিলাম, সেখান থেকেই পুনরায় কঠোর আন্দোলনে যাওয়া ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই।’

বিডিবিএনএ সদস্য নার্স সালমা খাতুন বলেন, ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিজে যেহেতু মেডিকেলের লোক না তাই উনি ডা. ইকবাল আর্সলানকে দায়িত্ব দিয়েছিলেন এ ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়ার ও সমস্যা সমাধান করার জন্য। কিন্তু পিএসসির বিজ্ঞাপনের পর থেকে তিনি আমাদের বার বার দেখা করার পরেও কোনো চূড়ান্ত সমাধান দিতে পারছেন না।’

নার্সদের মতে টানা তিন মাস পুলিশি নির্যাতন সয়ে, লাঠিচার্জ-সাউন্ড গ্রেনেড-জল কামান-টিয়ার শেল আর পিপার স্প্রে’র মুখোমুখি হয়েও আন্দোলনকে সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ ও অহিংস রেখে, ২৬ দিন অবিরত জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করেও সরকারের কোন সাড়া পাননি বেকার নার্সরা। অবশেষে তিন দিন আমরণ অনশনে থেকে বিডিবিএনএ এবং বিবিজিএনএস’র নার্স নেত্রীবৃন্দ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাক্ষাত পেয়েছিলেন।

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) ৩ হাজার ৬১৬ জন ‘সিনিয়র স্টাফ নার্স’ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিলের দাবিতে আমরণ অনশনরত এই বেকার নার্সদের ১ মে ধানমণ্ডিস্থ নিজ বাসায় ডেকে নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহারের আশ্বাস দিয়েছিলেন। ফলপ্রসূ আলোচনা শেষে নার্স নেতৃবৃন্দকে পানি পান করিয়ে অনশনও ভাঙান তিনি। পরে ডিরেক্টরেট অব নার্সিং সার্ভিসেস (ডিএনএস) মহাপরিচালক নিলুফার ফরহাদ অনশনস্থল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এসে দিবসে ‘দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস’ দিয়ে বাকি অনশনকারীদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান।

সে সময় নিলুফার ফরহাদ ও বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলানের মধ্যস্থতায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিলের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই