মেইন ম্যেনু

আসছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধি দল

গত বছরের অক্টোবরে ইংল্যান্ড দলকে সর্বোচ্চ স্তরের নিরাপত্তা দিয়েছিল বাংলাদেশ। সরেজমিনে তা দেখে গিয়েছিলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) নিরাপত্তা পরামর্শক শিন ক্যারল। সার্বিক নিরাপত্তা নিয়ে সেসময় সন্তুষ্টি ঝরেছিল তার কণ্ঠে। সন্তুষ্টির সূত্রেই ২০১৫ সালে স্থগিত হওয়া দুই টেস্টের সিরিজটি খেলতে এ বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরে আসছে অজি দল। তার আগে ‘রুটিন সিডিউল’ হিসেবে সার্বিক পরিস্থিতি পরিদর্শনে বাংলাদেশে আসছে সিএ’র প্রতিনিধি দল।

চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশ সফরে আসবে প্রতিনিধি দলে। দলে থাকবেন ক্যারলও। শনিবার মিরপুরে সংবাদমাধ্যমকে এ কথা জানান বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।

‘আপনারা জানেন, অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড-ভারতের মতো টিম যখন কোন দেশ সফর করে তার আগে প্রি-ট্যুর পরিদর্শন হয়। তারই ধারাবাহিকতায় অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের একটি প্রতিনিধি দল এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশ আসবে। নিরাপত্তাসংক্রান্ত বিষয় ও সুযোগ-সুবিধা দেখবে। সাধারণত সিরিজের আগে এটাই স্ট্যান্ডার্ড প্র্যাকটিস। পরিদর্শনের পর সংশ্লিষ্ট বোর্ড তাদের সবুজ সংকেত দেয়। যেহেতু অস্ট্রেলিয়ার জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তাদের খেলোয়াড়দের দিক থেকে এজন্য ক্যারলও থাকবেন।’

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ সফরের মৌখিক আশ্বাস দিলেও এখনও চূড়ান্ত করেনি। তাদের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের সার্বিক পরিস্থিতি পরিদর্শনের পরই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।

বিসিবির প্রস্তাবিত সূচি অনুযায়ী আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশে আসার কথা। ঈদুল আযহার আগে প্রথম টেস্ট ও পরে দ্বিতীয় টেস্ট মাঠে গড়াবে। প্রথম টেস্ট চট্টগ্রামে ও দ্বিতীয়টি মিরপুরে হওয়ার কথা রয়েছে। বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানালেন, অস্ট্রেলিয়া সিরিজের একটি টেস্ট যেন শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে হয় সে লক্ষ্য নিয়েই আউটফিল্ডের সংস্কার কাজ শেষ করা হবে।

২০১৫ সালের অক্টোবরে দুটি টেস্ট খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া দলের। কিন্তু অস্ট্রেলীয় সরকারের নির্দেশে সেই সফর স্থগিত হয়ে যায়। দেশটির সরকার নিরাপত্তাজনিত এক সতর্কবার্তায় বলেছিল, সফরের ওই সময়টিতে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে। পরে সিরিজটি বাতিল করে সিএ।

তারই জেরে ২০১৬ সালের শুরুর দিকে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ থেকেও নাম প্রত্যাহার করে নেয় অস্ট্রেলিয়া। গেল বছরের অক্টোবরে ইংল্যান্ড সিরিজ সফলভাবে সম্পন্ন করার পর বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে ইতিবাচক হয় সিএ।






মন্তব্য চালু নেই