মেইন ম্যেনু

আসিয়ানের সংলাপ অংশীদার হতে চায় বাংলাদেশ

দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর জোট আসিয়ানের সংলাপ অংশীদার হতে চায় বাংলাদেশ। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশগুলোর মধ্যে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংযোগ বাড়াতেই এই আগ্রহ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সরকার।

ঢাকায় ইন্দোনেশিয়ার দূতাবাসে সোমবার আসিয়ানের তৃতীয় পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জানিয়েছেন, বাংলাদেশ আসিয়ানের সংলাপ অংশীদার হতে আগ্রহী। সেসময় ঢাকায় নিযুক্ত আসিয়ান দেশগুলোর মিশন প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

আসিয়ান সচিবালয়ের অনুমতিতে ২০১৩ সালের ১২ সেপ্টেম্বর আসিয়ান ঢাকা কমিটি (এডিসি) প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৬৭ সালের ৮ আগস্ট আসিয়ানের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও আসিয়ানের সম্পর্ক শুধু দু’টি ঐতিহাসিক অঞ্চলের মধ্যে সেতুবন্ধনই স্থাপন করবে না বরং এর মাধ্যমে ব্যবসায়-বাণিজ্য এবং সাংস্কৃতিক সম্পর্কের প্রসার হবে।

উন্নয়নশীল বিশ্বে আঞ্চলিক জোটগুলোর মধ্যে আসিয়ান যে সবচেয়ে সফল তাতে কোনো সন্দেহ নেই। আসিয়ানের অর্থনৈতিক সম্ভাবনার প্রশংসা করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ও বাণিজ্যের গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে আসিয়ান। পাশাপাশি আসিয়ান এখন বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল ভোক্তা বাজার বলেও উল্লেখ করেন তিনি। এসব কারণেই প্রতিষ্ঠানটির সংলাপ অংশীদার হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ।






মন্তব্য চালু নেই