মেইন ম্যেনু

আসুন জেনে নেই, কারা পাচ্ছেন ‘স্মার্ট কার্ড’

নির্বাচন কমিশনের বিভিন্ন দুর্নীতির কারণে সময় মত স্মর্ট কার্ড না দিতে পারলেও এ বছরের শেষের দিকে পঞ্চগড় জেলা থেকে স্মার্ট কার্ড দেওয়া শুরু করবে (ইসি)। নির্বাচন কমিশন সূত্রে রবিবার এ তথ্য জানা গেছে।

ইসি সূত্র জানায়, আগামী ডিসেম্বর থেকে প্রাথমিকভাবে স্মার্ট কার্ড দেওয়া শুরু করবে ইসি। ঢাকায় প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর হতে এ কার্ডের উদ্বোধন করা হবে। পর্যায়ক্রমে সকল ভোটারকে স্মার্ট দেবে ইসি। তবে সবার আগে দেওয়া হবে জাতীয় সংসদের এক আসন পঞ্চগরের ভোটারদের। আর সবার শেষে ৩০০তম আসন, বান্দরবানের ভোটারদের।

ইসি সূত্র বলছে, পঞ্চগড় এক আসন থেকে জাতীয় সংসদের দুই আসন, তিন আসন, চার আসন এভাবে ৩০০ আসনে পর্যন্ত পর্যারয়ক্রমে স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ইসির সচিব সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমারা কিছু সমস্যার কারণে সময় মত নাগরিকদের স্মার্ট দিতে পারিনি। তবে আশা করি ডিসেম্বরে মধ্যে এই কার্ড দেওয়া শুরু হবে। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রীও এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি। খোঁজ খবর রাখেন।

জানা যায়, উন্নতমানে এই কার্ড ব্যবহার করে ২০ ধরণের নাগরিক সেবা পাওয়া যাবে। এছাড়া ভবিষতে ই-পোসপোর্ট এবং ইমিগ্রেশন সেবাসহ বহুবিধ ব্যবহারে এই কার্ড ব্যবহার করা যাবে। এটি পৃথিবীর যেকোনো দেশের স্মার্ট কার্ডের চেয়ে বেশি মেমোরি সম্পন্ন। এই কার্ড সহজে কেউ নকল করতে পারবেনা। একটি স্মার্টকার্ডে খরচ পড়বে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১৫ হাজর টাকা।

স্মার্ট কার্ডের প্রাথমিক নমুনা অনুসারে সামনের অংশে নাম, বাবা-মায়ের নাম, জন্ম তারিখ ও পরিচিতি নম্বর থাকবে। অন্য অংশে থাকবে বারকোড। তবে বর্তমান কার্ডে স্বামীর নাম থাকলেও স্মার্টকার্ডে রাখা হবে না। এছাড়া এই কার্ডের ডিজাইনেও বেশ পরিবর্তন আসছে।

বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় নতুন প্রযুক্তিতে তৈরি জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) স্মার্টকার্ডে ২৫টি নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য থাকবে। তিনটি স্তরে এসব নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য রাখা হবে। এ কার্ডটি ১০ বছরের জন্য টেকসই করে তৈরি হচ্ছে। এরই মধ্যে স্মার্টকার্ডের জন্য ৯ কোটির বেশি মানুষের তথ্যভন্ডার বা ডাটাবে তৈরি করেছে ইসি।

স্মার্ট কার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের লক্ষ্যে ফ্রান্সের অবার্থুর টেকনোলজিস নামে এক সংস্থার সঙ্গে প্রায় ৮০০ কোটি টাকার চুক্তি করেছে ইসি। ইতোমধ্যে স্মার্টকার্ডের নমুনা চূড়ান্ত করে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি স্থাপনের কাজও শেষ হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী, স্মার্ট আইডি কার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের দায়িত্বে থাকবে ফ্রান্সের ওই সংস্থা।

উল্লেখ্য,এ বছরের ২৬ মার্চ স্মার্ট কার্ড দেওয়ার কথাছিল ইসির। বিভিন্ন সমস্যার কথা বলে তা দিতে ব্যর্থ হয় ইসি, পরে নতুন করে প্রকল্পটির আরও ১৮ মাস সময় চায় এই সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি ।বর্তমানে দেশে ৯ কোটি ৬২ লাখেরও বেশি নাগরিক ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই