মেইন ম্যেনু

আয়লানের মৃত্যুর ঘটনায় দুই পাচারকারীর বিচার শুরু

গত বছর সহিংস সিরিয়া থেকে পালিয়ে সাগরপথে ইউরোপ যাওয়ার পথে তুরস্ক উপকূলে নৌকাডুবে ভেসে উঠেছিল আয়লান কুর্দির লাশ। লাল টি-শার্ট আর নীল হাফপ্যান্ট পরা সাগরে পাড়ে উপুড় হয়ে পড়ে থাকা আয়লানের লাশের সেই ছবির কারণে শরণার্থী ইস্যুতে নিজেদের অবস্থান পাল্টাতে বাধ্য হয়েছিল ইউরোপ। সেই আয়লান কুর্দির মৃত্যুর জন্য দুই পাচারকারীর বিচার শুরু হয়েছে তুরস্কে।

মুয়াফাকা আলাবাস ও আসেম আলফ্রাহাদ নামে অভিযুক্ত দুই পাচারকারীই সিরিয়ার নাগরিক। মানবপাচার ও হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের সর্বোচ্চ ৩৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

সিরিয়ার কোবানি শহরে আইএস যোদ্ধাদের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর লড়াই শুরুর পর ২০১৫ সালে পালিয়ে তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছিল আয়লানের পরিবার। সেখান থেকে রাতের আঁধারে ছো্ট্ট একটি নৌকায় চড়ে তুরস্কের বোদরাম থেকে গ্রিসের কস দ্বীপের উদ্দেশে যাত্রা করেছিলেন তারা। পথে নৌকা ডুবে মা ও ভাই গালিপসহ ভেসে যায় তিন বছরের আয়লান। তবে বেঁচে যায় আয়লানের বাবা আব্দুল্লাহ কুর্দি।

বৃহস্পতিবার বোদরাম দ্বীপেই দুই পাচারকারীর বিচার শুরু হয়েছে। ‘গুরুতর অবহেলার কারণে’ আয়লানসহ পাঁচজনের মৃত্যুর অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।






মন্তব্য চালু নেই