মেইন ম্যেনু

আয় বাড়াতে চান? শিখুন এই ভাষাগুলো

সম্প্রতি ইউরো লন্ডনের এক প্রতিষ্ঠান জানায় যে, একটি নতুন ভাষা রপ্ত করলে একজন মানুষের ১০ থেকে ১৫ শতাংশ আয় বেড়ে যায়। কি হল? চোখ মাথায় উঠল তো? একটু অবাক করা হলেও ব্যাপারটা অনেকেরই জানা যে, ভাষা বর্তমান যুগে নিজেকে সবখানে মানিয়ে নেওয়ার আর জীবনকে আরো একটু সহজ করার অন্যতম উপায়। আর জীবনকে সহজ করার ক্ষেত্রে অর্থনৈতিকভাবেও একজন মানুষকে অনেকটাই সাহায্য করে একটি ভাষা। তবে পৃথিবীর এত-শত ভাষার ভেতরে নির্দিষ্ট কিছু ভাষা আছে যেগুলো রপ্ত করলে অন্যান্যদের চাইতে একটু বেশিই পয়সা আসবে আপনার পকেটে। জানতে চান সেগুলোকে? চলুন দেখে আসি।

১. জার্মান

নিজের ভাষার পাশাপাশি আরেকটি ভাষা মানুষের স্বাভাবিক আয়কে অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়। আর দি ইকনমিস্টের এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী সেই তালিকায় প্রথমেই আছে জার্মান ভাষা। অনেকেই নিশ্চয় ভাবছেন, আরে! জার্মান কেন? এ তালিকার প্রথমে তো থাকার কথা মান্দারিন, জাপানিজ বা স্প্যানিশের। কিন্তু না! বাস্তবে জার্মান ভাষা শিখলে হিসেব মতে প্রায় ১২৫,০০০ ইউরো থাকতে পারে আপনার আয়ের ঝুলিতে বাড়তি হিসেবে।

২. ফ্রেঞ্চ

পাঁচটি ভিন্ন ভিন্ন মহাদেশের ভেতরে বসবাসরত প্রায় ২০০ মিলিয়ন মানুষের মুখের ভাষা ফ্রেঞ্চ! ব্যস, নিশ্চয় আর বুঝিয়ে বলতে হবেনা যে ফ্রেঞ্চ কেন আপনাকে অতিরিক্ত আয় করতে বেশি সাহায্য করবে? প্রথমটায় হয়তো আপনার নে হতেই পারে যে ফ্রেঞ্চ কেবল ফ্রান্সে বসবাসরতদেরই ভাষা। কিন্তু এটাও সত্যি যে, ইংরেজির পর পৃথিবীতে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ফ্রেঞ্চ। কেবল ফ্রেঞ্চ নানা প্রতিষ্ঠানেই নয়, বিভিন্ন দেশেও বেশ সুবিধা করে দেয় এই ভাষাটি। শুধু তাই নয়, বাইরে পড়তে যেতে চাইলেও ফ্রেঞ্চ বেশ কাজে লাগতে পারে আপনার।

৩. স্প্যানিশ

আগে এতটা বাড়াবাড়ি না থাকলেও বেশকিছু বছর ধরে আমেরিকা আর ইউরোপে ইংরেজির পর স্প্যানিশ সবচাইতে জনপ্রিয় ভাষায় পরিণত হয়ে গিয়েছে। বিশেষ করে যে কোন কর্মক্ষেত্রেই আপনি থাকুননা কেন, স্প্যানিশ ভাষা বেশ কাজে দেবে আপনার। সেইসাথে এর বাড়তি সুবিধাটা হচ্ছে এই যে, ইংরেজি বলতে পারলে স্প্যানিশ ভাষা খুব সহজ হবে আপনার জন্যে।

৪. মান্দারিন

এটা বলার অপেক্ষা রাখেনা যে কেন মান্দারিন আয়ের দিক দিয়ে অন্যসব ভাষাকে টেক্কা দিয়ে আসছে আর ভবিষ্যতেও দেবে। আফ্রিকা থেকে আমেরিকা- যে কোন প্রতিষ্ঠান হোক না কেন, বিশেষ করে সেটা যদি হয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাহলে এক মান্দারিন ভাষাই আপনাকে দিতে পারে কোটি কোটি মানুষ। বিভিন্ন কোম্পনিতে বর্তমানে এই চীনা ভাষার বেশ চাহিদা রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই