মেইন ম্যেনু

ইংরেজিতে অনর্গল কথা বলার দক্ষতা তৈরির কয়েকটি সহজ উপায়

যুগটাই এখন এমন, ইংরেজি ছাড়া কোন কিছু চিন্তাও করা যায় না। কি চাকরি, কি পড়াশোনা সব জায়গায়ই ইংরেজিতে দক্ষতা এখন প্রাথমিক চাহিদা। দক্ষতা বিভিন্ন রকমের হতে পারে। তাদের ভিতরে ইংরেজিতে বলার দক্ষতা এখন সবচেয়ে বেশি চাহিদাসম্পন্ন দক্ষতা।

বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানিতে ভালো চাকরি পেতে গেলে ভালো ইংরেজি বলতে পারার কোন বিকল্প নেই। এমনও দেখা গেছে, সবরকম যোগ্যতা থাকা স্বত্বেও শুধুমাত্র ইংরেজিতে সাবলীলভাবে কথা না বলতে পারার জন্য অনেকেরই বহুজাতিক কোম্পানিতে চাকরি হয় না। সময় এসেছে এখন সামনে এগিয়ে যাওয়ার, নিজের দক্ষতা বাড়ানোর।

কীভাবে ইংরেজিতে সাবলীলভাবে কথা বলবেন? নীচের টিপসগুলো অনুসরণ করুনঃ

ভয় দূর করুনঃ ইংরেজিতে আপনি হয়তো কথা বলতে চান। কিন্তু আপনার ভয় লাগে। মনে হয়, আপনি ভুলভাল বলে বসবেন, আটকে যাবেন। আশেপাশের সবাই আপনাকে নিয়ে হাসাহাসি করবে। কে হাসলো বা কি করলো, ওইসব ভুলে যান। আপনি যদি শুরুই না করেন, আপনি কখনোই বুঝতে পারবেন না আপনার কোথায় ভুল হচ্ছে, কোন জায়গায় আপনাকে উন্নতি করতে হবে। কাজেই অহেতুক ভয় অথবা লজ্জ্বা দূর করুন।

ইংরেজিতে ভাবতে শিখুনঃ আমরা যখন কথা বলি, আমাদের মাথার ভিতরে আগে কথাগুলো সাজাই। তারপরেই বলা শুরু করি। এখন আপনি যদি ইংরেজি বলতে গিয়ে বাংলাতেই কথা সাজানো শুরু করেন অথবা ভাবা শুরু করেন, আপনি ভালোভাবে ইংরেজিতে কথা বলতে পারবেন না। কাজেই কথা শুরু করার আগে ইংরেজিতে চিন্তা করতে শিখুন। ভাবতে শিখুন। ইংরেজিতেই কথা সাজাতে শিখুন আপনার মস্তিষ্কে।

শব্দভান্ডার বাড়ানঃ এটা একটা খুবই সাধারণ সমস্যা, কথা বলতে গিয়ে উপযুক্ত শব্দ খুঁজে না পাওয়া। এই সমস্যার সমাধান একটাই। সেটা হচ্ছে ইংরেজিতে Vocabulary বাড়ানো। প্রতিদিনই চেষ্টা করুন নতুন নতুন কিছু শব্দ শিখতে। সহজ শব্দগুলোই শিখুন, যেগুলো আপনি কথা বলার সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

মিডিয়াকে কাজে লাগানঃ ইংরেজিতে কথা বলার ক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন মিডিয়া অথবা মাধ্যমের সাহায্য নিতে পারেন। ইংরেজি বই, ইংরেজি পত্রিকা পড়ুন। টেলিভিশনের ইংরেজি সংবাদ, বিভিন্ন প্রোগ্রাম দেখুন। ইংরেজি মুভি দেখুন। সম্ভব হলে Subtitle সহ দেখুন। এতে আপনার শেখাটা অনেক তাড়াতাড়ি হবে। নিজের Voice রেকর্ড করে শুনুন। এতে আপনার Confidence বাড়বে, নিজের ভুলগুলোও বুঝতে পারবেন।

সমমনা বন্ধু খুঁজে নিনঃ এমন কিছু বন্ধু খুঁজে বের করুন, যারা আপনারই মতো ইংরেজিতে কথা বলা শিখতে চান। তাদের সাথে প্রতিদিন একবার হলেও বসে ইংরেজিতে কথা বলার চর্চা করুন। সেটা ১ ঘন্টার জন্য হলেও। এভাবে ৫/৬ জন মিলে প্রতিদিন ইংরেজিতে কথা বলতে থাকলে আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন না যে কত দ্রুত আপনি ইংরেজিতে দক্ষভাবে কথা বলতে শিখে গেছেন।

এখানে আরও কিছু টিপস দেওয়া আছে

চাকুরী জীবনেও দেখেছি আমার বসরাও ইংরেজীতে একখানা চিঠি লিখতে পারতেন না; এমনকি বাংলাতেও না! বেতন পেতেন আমার চাইতে ৪ গুন! এমনকি আমার কলিগরা্ও নিজেদের ব্যক্তিগত কোন ইংরেজী চিঠি কিংবা মেইল লিখে দেবার জন্য কোকা-কোলার লোভ দেকিয়ে যেতেন প্রতিনিয়ত। বলে রাখা ভালো আমি কিন্তু ভাই ইংরেজীতে সম্মান কিংবা স্নাতোকোত্তর নই! লেখা পড়া করেছি সমাজবিজ্ঞানে এবং বাংলা মিডিয়ামেই। কথা না বাড়িয়ে এখন মূল বিষয়ে আসি-

০১। অনেকে মনে করে থাকেন ইংরেজী খবরের কাগজ পড়লে ইংরেজী শেখা যায়। এটি ভুল ধারনা। কারণ খবরের কাগজের সাথে তিন-চার খানা ডিকশনারী নিয়ে বসতে হয়। যেকোনকিছুই শিখবার সহজ উপায় হলো বিনোদনের মাধ্যমে শেখা। আমি বাংলা খবরের কাগজেই আগ্রহী বেশী।

০২। গ্রামার বই পড়ে আপনি ইংরেজী ভাষার শুদ্ধ প্রয়োগ শিখতে পারবেন। এটা জরুরী বিষয়। তবে আজ-কাল যেসব গ্রামার বই বাজারে পাওয়া যায়! সেগুলোতে সৃজনশীলতার মাখা মাখি। ভয়েস, ন্যারেশন, সেন্টেনস স্ট্রাকচার এসবের বালাই নেই। শুধূ উপরের অংশটি পড়ে নীচের প্রম্নের উত্তর দাও।!!!! এজন্যই আজকালকার ইংরেজী শুনলে হাসি পায়। পুরোনো বই এর দোকানে গিয়ে খুঁজে দেখুন আশির দশকের কোনো গ্রামার বই পান কিনা। কাজে লাগবে।

০৩। ইংলিশ মুভি দেখা হলো সবচাইতে সহজ উপায় ভালো ইংরেজী বলবার জন্য। যারা একটু কাঁচা, তারা সাবটাইটেল সহ দেখবেন। এক্ষেত্রে মুভি সিলেকশানটাই সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ। আমি কয়েকটি মুবির নাম এখানে উল্লেখ করছি পারলে সংগ্রহ করে দেখা শুরু করে দিন। মুভিগুলোও উপবোগ করতে পারবেন, আবার ইংরেজী শিখবার রাস্তায় অনেকদূর এগিয়ে যাবেন। ‘নটিং হিল’, ‘শার্লক হোমস টিভি সিরিয়াল কালেকশান’ এদুটির কথাই এখন বলছি, কারন দুটি মুভিতেই ব্রিটিশ ইংরেজী ভাষার ব্যাকারণিক ভিত্তিতে ডায়লগ রচিত।

০৪। অনেকে ভাবতে পারেন ব্রিটিশ ইংলিশ তো চলে না! ভাই রে, ভাষাটি আগে সহজ ভাবে শিখে নেন! তারপর ইউ এস চলতি ভাষার দিকে নজর দেন। না হলে, বলতে গিয়ে গুবলেট হয়ে যাবে। ভালো ইংরেজী জানা মানুসের সঙ্গে কথা বলতে গেলে মুচকি হাসির খোরাকে পরিনত হবেন না হলে! ‘দ্যা পাইরেটস অব দ্যা ক্যারিবিয়ান’ মুভি সিকুয়্যাল গুলো দেখুন। বিশেষ করে ফলো করুন ক্যাপটেন জ্যাক স্প্যারো এর ডায়লগ। দেখবেন কিভাবে তিনি ছোট ছোট শব্দের মাধ্যমে অনেক বড় অভিব্যক্তি প্রকাশ করছেন। মনে রাখবেন, কথা বলবার সময় আপনার অভিব্যক্তি আপনার শব্দ ভান্ডরের অভাবকে কিছুটা হলেও ঢেকে দেবে।

০৫। ইউ এস ইংলিশ শিখবার জন্য ‘জেফ ডানাম’ লিখে ইউ টিউবে সার্চ দিন। দেখুন শুনুন!!! অনেক কাজে দেবে। জেফ হচ্ছেন পৃথিবীর কয়েক জনের মধ্যে প্রথম সারির একজন স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান এবং পৃথিবীর সেরা ভেন্ট্রোকুইলষ্ট। উনার শো মানুষ হাজার ডলারে টিকেট কেটে দেখে থাকেন উচ্চমার্গীয় বিনোদনের জন্য। আপনাওে ভালো লাগবে। তবে ইংরেজী ভাষাটা কিছুটা ব্রিটিশ ধাচে শিখে নিতে হবে আগে। তাহলেই আপনি ইউ এস ধাচের ইংরেজী এ্যাকসেন্ট এর সাথে তাল মিলিয়ে লিসনিং এবং লার্নিং টা খুব উপভোগ্য ভাবে চালিয়ে নিতে পারবেন।

নিজের ইচ্ছাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যান। আপনিই জয়ী হবেন।






মন্তব্য চালু নেই