মেইন ম্যেনু

ইইউ’তে থাকা নিয়ে যুক্তরাজ্যে আজ গণভোট

যুক্তরাজ্যে ঐতিহাসিক গণভোটের সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই শুরু হতে যাচ্ছে ভোট। এই ভোটের মাধ্যমে পরিস্কার হবে যুক্তরাজ্য কি ২৮টি দেশের জোট ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে থাকবে, নাকি ৪০ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে একলা পথে চলবে।

যুক্তরাজ্যে আজ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে শুরু হচ্ছে ভোটগ্রহণ। একটানা ভোট চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত। এই ভোটে অংশ নিচ্ছে মোট ৪ কোটি ৬৪ লাখ ৯৯ হাজার ৫৩৭ জন ভোটার। দেশটির ইতিহাসে এটি চতুর্থ গণভোট। শুক্রবার সকাল নাগাদ ভোটের ফলাফল জানা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ব্যালট পেপারে কোনো মার্কা থাকছে না। এর বদলে কেবল লেখা থাকছে ‘যুক্তরাজ্যের কি ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য থাকা উচিত, নাকি এটি ছেড়ে আসা উচিত?’ এই ‘হ্যা’ ও ‘না’ ভোটে সেই পক্ষই বিজয়ী হবে যারা মোট ভোটের অর্ধেকের বেশি ভোট পাবে।

ভোট শেষে ব্যালট বাক্সগুলো স্থানীয় ৩৮২টি গণনাকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে। এগুলোর মধ্যে ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড ও ওয়েলসে ৩৮০টি এবং নর্থ আয়ারল্যান্ড ও জিব্রাল্টারে একটি করে গণনাকেন্দ্র রয়েছে। স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ওইসব কেন্দ্রে ভোট গণনার কাজ চলবে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

তবে, এই গণভোটকে ঘিরে স্পষ্টত দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে যুক্তরাজ্য। প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ও বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনসহ দেশটির প্রধান রাজনৈতিক নেতারা ইইউতে থাকার পক্ষে। তাদের যুক্তি, এতে করে দেশটি হবে আরো সমৃদ্ধ এবং থাকবে আরো নিরাপদ। আর ইইউ-বিরোধীরা মনে করছেন, দেশের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে ফিরিয়ে আনার এটাই মোক্ষম সময়।

এ নিয়ে যুক্তরাজ্যের বাইরেও চলছে ব্যাপক আলোচনা। ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জ্যঁ ক্লদ ইওঙ্কার সর্তক করে বলছেন, গণভোটের ফলে ইইউ থেকে একবার বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে সেটাই হবে চূড়ান্ত।

এদিকে, জার্মান চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মের্কেল আশা করছেন ব্রিটিশরা ইইউ-তে থেকে যাওয়ার পক্ষেই রায় দেবে।






মন্তব্য চালু নেই