মেইন ম্যেনু

ইউটিউব থেকে সরাসরি রোজগারের সুযোগ

নিজের গলায় গান অথবা কবিতা আবৃত্তি শোনাতে চান অন্যদের কিংবা রান্নার ভাল রেসিপি তুলে ধরতে চান অন্যদের কাছে ৷তা করে নিছক আনন্দ শুধু নয় রোজগারের পথও খুঁজে পেতে পারেন৷ তেমনই সুযোগ করে দেবে ইউটিউব৷ বিষয় ঠিক করে স্বল্পদৈর্ঘ্যের অডিও -ভিডিও ক্লিপিং আপলোড করে ফেলুন ইউটিউব -এ৷ তা করার সময় অবশ্যই মনিটাইজেশন অপশনটি ক্লিক করতে হবে৷ তা হলেই ওই আপলোড করা ভিডিও থেকে যে বিজ্ঞাপন দেখানো হবে , তার থেকে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরাসরি অর্থ পাঠিয়ে দেবে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ৷

ইউটিউব ইন্ডিয়া -র এন্টারটেইনমেন্ট হেড সত্য রাঘবনের জানিয়েছেন, ২০১৩ -১৪ সালে প্রায় সব কনটেন্ট ক্রিয়েটরই ইংরেজিতে তা তৈরি করতেন৷ কিন্তু আস্তে আস্তে অবস্থা বদলেছে৷ ২০১৫ -তে দক্ষিণের চার রাজ্য তাদের নিজ নিজ ভাষাতে প্রচুর কনটেন্ট এখানে আপলোড করে৷ইদানিং বাংলাতেও ইউটিউবে প্রচুর কনটেন্ট রয়েছে ৷ বাঙালি ক্রেতারা আরও বেশি করে তাঁদের মাতৃভাষায় কনটেন্ট চাইছেন বলে তিনি জানান৷

গত কয়েক বছরে পরিস্থিতি যে বদলেছে তার কারণ হল বর্তমানে মোট কনটেন্টের ৪০ শতাংশই বাংলা সহ বিভিন্ন আঞ্চলিক ভাষায় তৈরি হচ্ছে৷এদিকে ইউটিউবে কনটেন্ট আপলোডের পরিমাণ বছরে প্রায় ৯০ শতাংশ বৃদ্ধি পাচ্ছে৷গোটা দেশে এখন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩৫ কোটির কিছু বেশি , তার মধ্যে প্রায় ২০ কোটি মানুষ তাঁদের স্মার্টফোনে মারফত ইন্টারনেট ব্যবহার করেন৷বিশেষজ্ঞরা আশা করছেন , ২০২০ সালের মধ্যে ভারতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬০ কোটি পেরিয়ে যাবে৷ এদিকে প্রতি ১০ জন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর মধ্যে সাত জন মাসে অন্তত একবার ইন্টারনেটে ভিডিও দেখেন৷ এমন প্রবণতা দেখে বিরাট বাজারের কথা মাথায় রেখেই দেশ জুড়ে কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধতে আরও সক্রিয় হচ্ছে ইউটিউব৷ সম্প্রতি কলকাতায় সংস্থার পক্ষ থেকে প্রায় ৪৫ জন ক্রিয়েটরের সঙ্গে বৈঠক করে৷ এমন বৈঠক এই শহরে প্রথম হলেও এর পর থেকে প্রতি মাসে একবার করে করতে চাইছেন ইউটিউব কর্তা৷ মুম্বইতে তাদের নিজস্ব স্টুডিওতে নিখরচায় ক্রিয়েটারদের ব্যবহার করতে দেওয়া হয় ৷ তবে সেক্ষেত্র শর্ত হল তাঁদের অন্তত ১০ ,০০০ গ্রাহক থাকতে হবে৷-কলকাতা২৪






মন্তব্য চালু নেই