মেইন ম্যেনু

চতুর্থ ধাপের নির্বাচন : এবার গেল ৭ জনের প্রাণ

চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে শনিবার নির্বাচনী সহিংসতায় সারাদেশে এ পর্যন্ত ৭ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে নরসিংদীতে দুই, রাজশাহীতে তিন, ঠাকুরগাঁও ও কুমিল্লায় একজন করে মারা গেছেন।

রাজশাহী : রাজশাহীর বাগমারার আউচপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের সময় পুলিশের গুলিতে কমপক্ষে তিনজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তবে নিহত দুইজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন জাহিদুল ইসলাম ওরফে বুলু (৩৫) এবং সিদ্দিকুর রহমান (৩০)।

ঠাকুরগাঁও: বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নে বিজিবির গুলিতে মাজাবুর রহমান পল্টু (১৭) নামে একজন নিহত হয়েছেন। এসময় আরো দুইজন আহত হয়েছেন। স্থানীয়দের অভিযোগ বিজিবির গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার বিকেলে ৩টায় পাড়িয়া ইউনিয়নের মাচকুড়িয়া দাখিল মাদরাসায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, মাহাবুর রহমান পল্টু বিজিবির গুলিতে নিহত হয়েছেন।

বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর ইসলাম জানান, দুই ইউপি সদস্যের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ এড়াতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে। বর্তমানে ওই এলাকায় অতিরিক্ত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

কুমিল্লা : জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের দুই সাধারণ সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে তাপস চন্দ্র দাশ (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উত্তর চান্দলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, সাধারণ সদস্য প্রার্থী মোরগ প্রতীকের রেজাউল করিমের অনুসারীদের সঙ্গে চাপকল প্রতীকের সুলতান আহমেদের অনুসারীদের ভোট দেওয়া নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। এরপর দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই তাপসের মৃত্যু হয়।

ব্রাহ্মণপাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম বদিউজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই