মেইন ম্যেনু

ইডেনের সেই লাবনীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ, গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তোলপাড়

নরসিংদীর মনোহরদীতে বিদ্যালয়ে না গিয়েই সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করা সহকারী শিক্ষক উম্মে হানি লাবনীকে বুধবার কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা।

ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককেও কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। সাত দিনের মধ্যে তাঁদের নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষাসচিবের নির্দেশে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের নেত্রী উম্মে হানি লাবনী মনোহরদী উপজেলার উত্তর পীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কাগজে-কলমে কর্মরত আছেন।

গত সোমবার ‘স্কুলের খাতায় সই করেই বেতন তোলেন ইডেন ছাত্রলীগের নেত্রী লাবণ ’ শিরোনামে প্রতিবেদন ছাপা হয়।

ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর ও ইডেন কলেজে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

অনুসন্ধানের জানা যায়, লাবনী ২০১৩ সালের ১২ সেপ্টেম্বর মাসে পীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। যোগদানের ২৮ দিনের মাথায় ১০ অক্টোবর প্রেষণে (ডেপুটেশন) উত্তর পীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগ দেন তিনি। যোগদানের পর থেকেই তিনি প্রতি মাসের শেষের দিকে দু-এক দিন বিদ্যায়ে উপস্থিত হয়ে হাজিরা খাতায় পুরো মাসের সই করেন। বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকাকালে তিনি কোনো ক্লাসও নেন না।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, খবর প্রকাশের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট সহকারী শিক্ষক ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সাত কার্যদিবসের মধ্যে তাঁরা জবাব দেবেন।

জানা যায়, নিয়োগ বাণিজ্যসহ লাবনীর বিরুদ্ধে রয়েছে নানা অভিযোগ। ফাঁদে ফেলে জুনিয়র ছাত্রীদের দিয়ে অনৈতিক কর্ম করানোর অভিযোগ রয়েছে লাবনীর বিরুদ্ধে। দৈনিকশিক্ষা

আরো পড়ুনঃ

শুধু হাজিরা খাতায় সই করেই বেতন তোলেন ইডেন ছাত্রলীগের নেত্রী লাবনী






মন্তব্য চালু নেই