মেইন ম্যেনু

‘ইনু সাহেব নির্দেশ দিয়ে যান কী বলা যাবে না’

দেশে আজ গণতন্ত্র নেই বলে দাবি করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র আজ প্রাণহীন। এই গণতন্ত্রের প্রাণ ফিরিয়ে দিতে তিনি রাস্তায় নেমেছেন।

আজ সোমবার দুপুরে খুলনার হাদিস পার্কে খুলনা জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এরশাদ এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, ‘কতজন মানুষ মরছে। হিসাব নাই। এখানে প্রতিবাদ কেউ করতে পারে না। প্রেস প্রতিবাদ করতে পারে না। লিখতে পারে না। টেলিভিশন কথা বলতে পারে না। টক শোতে কথা বলতে পারে না। আগে থেকে ইনু সাহেব নির্দেশ দিয়ে যান কী বলা যাবে না।’

এরশাদ বলেন, ‘গণতন্ত্র অর্থ কী? আমি কথা বলতে পারব। বলতে পারব। লিখতে পারব। সরকারের ভুল ধরিয়ে দিতে পারব। এইটা হচ্ছে গণতন্ত্র। আমি ভোট দিতে পারব। আমি একটা সুষ্ঠু নির্বাচনে ভোট দিতে পারব। এইটা হলো গণতন্ত্র। লিখতেও পারব না। বলতেও পারব না। ভোটেও যেতে পারব না। এটা কী ধরনের গণতন্ত্র। গণতন্ত্র আজ বাংলাদেশে প্রাণহীন। গণতন্ত্র সংবিধানে আছে। আর কোথাও নেই। প্রাণের গণতন্ত্র। এই গণতন্ত্রকে উজ্জীবিত করতে হবে। গণতন্ত্রকে প্রাণ ফিরিয়ে দিতে হবে। তাই রাস্তায় নেমেছি।’

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সুনীল শুভ রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে পার্টির মহাসচিব সংসদ সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, পানিসম্পাদমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, আলহাজ সাহিদুর রহমান, আলহাজ আবুল হোসেন, রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, শফিকুল ইসলাম মধু, খুলনার নয় উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ স্থানীয় পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, দেশে আজ কত গুম খুন হচ্ছে তাঁর কোনো হিসাব নেই। আর তাঁর সময় ডা. মিলন আর নূর হোসেন ছাড়া কেউই খুন হয়নি। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, একজন খুন হলো অমনি নূর হোসেন চত্বর ঘোষণা করা হলো। আজ যদি ওই রকম চত্বরের নামকরণ করা হয়, তাহলে দেশে কোথাও জায়গা থাকবে না।

এরশাদ দাবি করেন, ‘আট বছর সেনাবাহিনীর প্রধান এবং নয় বছর রাষ্ট্রপতি ছিলাম। কোনো দিন বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপ করিনি। কিন্তু আজ বিচার বিভাগ স্বাধীন নন।’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি নাকি অনেক টাকা পাচার করেছি। আরে পাচার তো হচ্ছে এখন। বেসিক ব্যাংক চার-পাঁচ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে গেল, সোনালী ব্যাংক থেকে ২৬ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে গেল। এবং শেয়ার বাজারের টাকা পাচার হলো। একটা টাকা উদ্ধারও হলো না। সবাই জানে এর পেছনে কে আছে। আমার সময় তো টাকা পাচার হয়নি।’

এরশাদ বলেন, তাঁর আমলেই প্রথম সাতটি বেসরকারি ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেন। কিন্তু তিনি নিজে কোনো ব্যাংক নেননি। কিন্তু আজ ব্যাংক অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে ভাগাভাগি করার জন্য।

এখানে উল্লেখযোগ্য, এরশাদ নিজেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলে ইউনিয়ন ব্যাংকের লাইসেন্স পেয়েছেন। তিনি ওই ব্যাংকের একজন পরিচালক।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, বিএনপি এখন শিয়ালের গর্তে, মাঝেমধ্যে কথা বলে আবার গর্তে চলে যায়। তিনি স্মৃতিচারণা করে বলেন, ২০০৭ সালের নির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়া বলেছিলেন এরশাদ সাহেব জেলে যাবেন আর লাশ হয়ে বের হবেন। কিন্তু আজ নিয়তি খালেদা জিয়াকে জেলে যেতে হবে। তিনি অপেক্ষায় থাকবেন জেল থেকে তিনি কী হয়ে বের হন।

ছয় বছর পর অনুষ্ঠিত এই জাতীয় পার্টির জেলা সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মো. শফিকুল ইসলাম মধুকে নতুন সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করেন দলের চেয়ারম্যান। আর সাধারণ সম্পাদক পদে দুজন প্রার্থী থাকায় ওই পদে আগামীতে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি নাম ঘোষণা করবেন বলে জানান। সর্বশেষ ২০০৯ সালের ১৭ জুলাই খুলনা জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন হয়েছিল।






মন্তব্য চালু নেই