মেইন ম্যেনু

ইরাকে আইএস-কুর্দিশ মরণপণ লড়াই, পিছু হঠছে আইএস

ইরাকি শহর সিঞ্জারে আইএস জঙ্গিবাহিনী এবং কুর্দিশ সেনাবাহিনীর মধ্যে মরণপণ যুদ্ধের পরে শহরটির দখল নিতে শুরু করেছে ইরাক, পিছু হঠছে আইএসের যোদ্ধারা।

সংবাদ সূত্রে জানা গেছে, কুর্দিশ পেশমার্গ বাহিনী যুদ্ধে আইএসকে পিছু হটিয়ে ঢুঁকে পড়েছে সিঞ্জার শহরের মাঝখানে। আজ শুক্রবার যখন ইরাকি পেশমার্গ বাহিনী উত্তরদিক থেকে পাহাড় বেয়ে নেমে শহরটি পুনর্দখলে এগিয়ে যায় তখন দুই পক্ষ থেকেই ভারী গোলাবর্ষণের আওয়াজ পাওয়া যায়। অনেক প্রত্যক্ষদর্শীর মতে সৈনিকেরা কাঁধে হালকা অস্ত্রের পাশাপাশি ভারী রকেট লঞ্চার বহন করছিল।

পেশমার্গ সৈনিকেরা পায়ে হেঁটে শহর পুনর্দখল করতে এগিয়ে যায়। এ সময় গোলাগুলিতে শহরের অনেক দোকানপাট এবং গাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তবে তারা ইতিমধ্যেই শহরের গভর্নর অফিস শত্রুমুক্ত করে দখল করে নিয়েছে।

কুর্দিশ সিকিরুটি কাউন্সিল থেকে জানানো হয়, আজ সকাল আনুমানিক ১০ টার দিকে সেনাবাহিনী চারদিক থেকে শহরটিতে প্রবেশ করে আইএসের বাকি সন্ত্রাসীদের সেখান থেকে উৎখাত করার উদ্দেশ্যে।

এই যুদ্ধে মার্কিন বিমানবাহিনী সাহায্য করছে তাদেরকে। গত বৃহস্পতিবার যুদ্ধে জেতার পূর্ব প্রস্তুতি হিসাবে যৌথ বাহিনী মিলে সিঞ্জার শহরের পূর্ব এবং পশ্চিম অংশে হামলা করে যাতে আইএসদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। গত বছরের আগস্ট মাসে যখন আইএস জঙ্গিরা সিঞ্জার পর্বতে বসবাসকারী হাজার হাজার ইয়াজিদিকে গণহত্যা করে তখন সর্ব প্রথম সেখানে মার্কিন বিমান হামলা হয়। আইএস বাহিনী সংখ্যালঘু ইয়াজিদিদের হামলা করে শুধুমাত্র ধর্মীয় কারণে। তাদের মতে ইয়াজিদিরা শয়তানের পূজা করে।

সংবাদ সুত্র মতে, এই মুহূর্তে কুর্দিশ সেনাবাহিনী সিঞ্জার শহরের বাইরেও অনেকখানি জায়গা জুড়ে তাদের অবস্থান নিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই