মেইন ম্যেনু

ইসরাইলি গুপ্তচর সেই শকুনের গল্প

দীর্ঘ দিন ধরে ইসরাইলি অত্যচারে অস্থির মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশ।প্রতিবেশি দেশগুলোর ওপর নানাভাবে নজরদারি করার ব্যাপারে ইসরাইলি তৎপরতা কমবেশি সবারই জানা।সরাসরি মানুষ খুন করার পাশাপাশি এবার ইসরাইলের পক্ষে একটি শকুনের গুপ্তচরবৃত্তি নিয়ে মিডিয়ার তোলপাড় শুরু হয়েছে।

ইসরাইয়েলের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির সন্দেহে লেবাননে একটি শুকন আটক করা হয়েছে। পরে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীদের হস্তক্ষেপে পাখিটিকে ছেড়ে দেয়া হয়। ইসরাইয়েলির কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন।

বিবিসির এক খবরে বলা হয়, শকুনটি লেবাননের সীমান্তের ওপর দিয়ে উড়ছিলো। তার লেজে একটি ট্র্যাকিং ডিভাইস দেখে গ্রামবাসীর সন্দেহ হলে শকুনটিকে আটক করা হয়। গত মঙ্গলবার লেবানের বিনত জেবিল গ্রামের স্থানীয় লোকজন ওই শকুনটিকে আটক করে।

ইসরায়েলের বন্যপ্রাণী কর্মকর্তারা বলেছেন, গত বছর স্পেন থেকে এই শকুনটি আনা হয়েছিলো। একম মাস আগে ইসরাইয়েলের অধ্যুষিত গোলান হাইটসে গামলা ন্যাচার রিজার্ভে পাখিটিকে মুক্ত করা হয়।

তেলআবিব ইউনিভার্সিটি ওই পাখিটির নজরদারি করছিলো। তার পাখায় একটি জিপিএস ট্রান্সমিটার ও ট্যাগ লাগানো ছাড়াও পায়ে একটি ধাতব রিং বাধা দেখা যায়।এ নিয়ে রীতিমতো হৈচৈ পড়ে যায় এবং পরে এ বিষয়ে জাতিসংঘ হস্তক্ষেপ করেন।

শেষপর্যন্ত জাতিসংঘের হস্তক্ষেপে শকুনটিকে ইসরাইয়েলকে ফেরত দয়া হয়।

অবশ্য লেবাননেন গণমাধ্যম বলছে, শকুনটি কোনো গুপ্তচর ছিল না এই বিষয়টি পরিস্কার হওয়ার পর এলাকাবাসী পাখিটিকে ছেড়ে দিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই