মেইন ম্যেনু

ইসলাইলকে সৌদির প্রস্তাব !

সৌদি সরকার ও তার মিত্ররা নতুন কিছু শর্তে আবারো কথিত আপোষ আলোচনা শুরু করতে ইসরাইলের কাছে আবেদন জানিয়েছে। নতুন শর্ত হিসেবে রিয়াদের কথিত শান্তি প্রস্তাবে পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে।

ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যম এ খবর দিয়ে আরো জানিয়েছে, সৌদি সরকার ও তার পারস্য উপসাগরীয় মিত্ররা এবং জর্দান ও মিশর সরকার সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ারসহ নানা দূতের মাধ্যমে ইসরাইলের কাছে এ সংক্রান্ত বার্তা পাঠাচ্ছেন।

ইসরাইলি দৈনিক আরুতজ শিভা জানিয়েছে, এই আরব সরকারগুলো ইসরাইলের কাছ থেকে জবাব আশা করছে এবং পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের ব্যাপারেও ইসরাইল কোনো নতুন ইঙ্গিত দিবে বলে তারা আশা করছে।

২০০২ সালে উত্থাপিত সৌদি প্রস্তাবে বলা হয়েছিল ইসরাইল ১৯৬৭ সালে দখল-করা ফিলিস্তিনি অঞ্চল তথা পশ্চিম তীর ও গাজা থেকে সরে গেলে ২২টি আরব সরকার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে।

ইসরাইলের দশ নম্বর চ্যানেল টেলিভিশন জানিয়েছে, সৌদি ওই প্রস্তাব অনুযায়ী অধিকৃত ফিলিস্তিনে ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের ফিরে আসার অধিকার মেনে নিতে হবে বলেই ইসরাইল এই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছিল। এখন ওই সৌদি প্রস্তাবে কিছু পরিবর্তন আনার কথা বলছে রিয়াদ যাতে ইসরাইল ফিলিস্তিনি স্বশাসন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আবারও আপোষ আলোচনা শুরু করে।

নতুন সৌদি প্রস্তাবে মুসলমানদের প্রথম কিবলার দখলদার ইসরাইলকে আরও বেশি ছাড় দেয়া হতে পারে বলে অনেকেই আশঙ্কা করছেন।

এর আগে চলতি মাসের গোড়ার দিকে ইসরাইলি দৈনিক মাআরিভ জানিয়েছিল, ইসরাইলি সংসদ নেসেট পশ্চিম তীরের ৬০ শতাংশ এলাকাকে ইসরাইলের সঙ্গে যুক্ত করার জন্য একটি বিল উত্থাপন করবে আগামী সপ্তাহগুলোতে।-প্যারিস টুডে






মন্তব্য চালু নেই