মেইন ম্যেনু

ইসলামি হোমওয়ার্ক দেওয়ায় স্কুল বন্ধ

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় একটি স্কুলে শিক্ষার্থীদের আরবি হোমওয়ার্ক দেওয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন অভিভাবকরা। অভিভাবকদের ক্ষোভ ও প্রতিবাদের কারণে নিরাপত্তার অজুহাতে শুক্রবার ভার্জিনিয়ার অগাস্টা কাউন্টির সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

ঘটনার সূত্রপাত স্টানটন এলাকার রিভারহেডস হাই স্কুলের বিশ্বের প্রধান ধর্মবিষয়ক ক্লাসে। ওই বিষয়ের শিক্ষক তার শিক্ষার্থীদের একটি আরবি ক্যালিওগ্রাফি বাসা থেকে করে আনতে বলেছিলেন। মূলত, ক্যালিওগ্রাফির জটিলতা বোঝানোর জন্য এই হোমওয়ার্কটি দেওয়া হয়েছিল। আর এই ক্যালিওগ্রাফিটি হচ্ছে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ্’ অর্থাৎ ‘আল্লাহ ছাড়া কোনো মাবুদ নাই, মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর রাসুল’।

হোমওয়ার্কের ভূমিকায় শিক্ষক বলেছেন, ‘এটি হচ্ছে একটি সাক্ষ্য। এটি ইসলামিক বিশ্বাসের বিবৃতি, যা আরবিতে লেখা হয়েছে। নিচে সেটি দেওয়া হয়েছে। এটি হাতে অনুশীলনের চেষ্টা কর। এটা তোমাকে ক্যালিওগ্রাফের শৈল্পিক জটিলতা বুঝতে সাহায্য করবে।’

শিক্ষার্থীরা তাদের বাসায় যখন হোমওয়ার্কটি করছিল, তখন অনেক অভিভাবকেরই বিষয়টি নজরে আসে। এ ঘটনায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে স্কুলে ফোন করতে শুরু করেন। তাদের দাবি, এর মাধ্যমে তাদের সন্তানদের ইসলামে ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। অভিভাবকদের সঙ্গে অনেকেই স্কুলে বিভিন্ন রকম হুমকি-ধমকি দিয়ে ফোন ও ই-মেইল পাঠাচ্ছে। অনেক অভিভাবক ওই শিক্ষকের পদত্যাগও দাবি করেছেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজি লিডার জানিয়েছে, শিক্ষক শেরিল লাপর্টি এই হোমওয়ার্ক নিজে থেকে তৈরি করেননি। তিনি এটি বিশ্বের বিভিন্ন ধর্মের মানসম্মত ওয়ার্কবুক থেকে এটি বাছাই করেছেন।

এদিকে অভিভাবকদের ক্ষোভ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে অগাস্টা কাউন্টির সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। তারা জানিয়েছে, কাউকে ধর্মান্তরিত করার উদ্দেশ্যে এই হোমওয়ার্ক দেওয়া হয়নি। তবে বিশ্বের প্রধান ধর্মবিষয়ক পাঠ্যসূচি থেকে কলেমাটি সরিয়ে ফেলা হয়েছে। এ ছাড়া ভবিষ্যতে ধর্মের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত নয় এমন আরবি ক্যালিওগ্রাফি শিক্ষা দেওয়া হবে শিক্ষার্থীদের।






মন্তব্য চালু নেই