মেইন ম্যেনু

“ইসলামী শাসন না থাকায় সর্বত্র মজলুম মানুষের আহাজারি চলছে”

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর সেক্রেটারী মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম বলেছেন, প্রচলিত শাসন ব্যবস্থা মজলুম মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে ব্যর্থ হয়েছে। মজলুম মানুষের আর্তনাদে আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠছে। চা দোকানীকে আইনশৃঙ্খলায় নিয়োজিতদের নির্যাতনে মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছে।

নিহতের পরিবারের আর্তনাদে শাহআলী এলাকা ভারি হয়ে উঠছে। এ থেকে মুক্তি পেতে হলে ইসলামের ছায়াতলে ফিরে আসতে হবে। যেখানে শাসক মানে জনগণের খাদেম।

আজ বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর কদমতলী থানা শাখার মেরাজনগর ৯নং ওয়ার্ডের কমিটি গঠন উপলক্ষে স্থানীয় অফিস মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। আলহাজ্ব ইমাম হোসেন পাটোয়ারী সভাপতিত্বে এবং মুহা. নাছির উদ্দিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কদমতলী থানা সভাপতি মাওলানা শাহজাহান নেজামী, সেক্রেটারী মাওলানা ক্বারী বাছির উদ্দিন মাহমুদ, শ্রমিক নেতা মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক।

আলোচনা সভাশেষে মাওলানা মোঃ মনির হোসাইনকে সভাপতি, মুহা. আবদুল জলিলকে সহ-সভাপতি, মুহাম্মদ নাছির উদ্দিনকে সেক্রেটারী ও মুহা. নজীল আহমদকে জয়েন্ট সেক্রেটারী করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট ৯নং ওয়ার্ড কমিটি পূন”র্গঠন করা হয়।

মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম আরও বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর নানাভাবে ইসলামকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। এখন মসজিদের খতীব ও খুৎবাহ নিয়ন্ত্রণের কাজে হাত দিচ্ছে। এটা করলে ইসলামী জনতাকে সেন্টিমেন্টাল করে তুলবে। ফলে দেশে ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করবে। কাজেই ইফা ডিজির লাগাম টেনে না ধরলে ইসলামকে সর্বনাশ করে ফেলবে। অবিলম্বে ইফা ডিজির অপসারণ করে ইসলামী জনতার ক্ষোভ প্রশমিত করতে হবে।

এদিকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সূত্রাপুর থানা শাখার দাওয়াতী সভা স্থানীয় একটি মিলনায়তনে ডা. শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে নগর সাংগঠনিক সম্পাদক মুহা. মোশাররফ হোসেন প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। স্থানীয় নেতৃবন্দ ও উলামায়ে কেরাম বক্তব্য রাখেন। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)






মন্তব্য চালু নেই