মেইন ম্যেনু

ইসলামের প্রশংসায় মোদি

ইসলাম ধর্মের ভূয়সী প্রশংসা করে মুসলিম বিশ্বকে আলোড়িত করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ায় ইসলামের প্রতি তার এই প্রশংসা।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সোমবার নয়াদিল্লিতে নিজ বাসভবনে আয়োজিত একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে সার্কভুক্ত দেশের হাইকমিশনার এবং মুসলিমপ্রধান দেশ কাতার, বাহরাইন, মিশর ও ইন্দোনেশিয়ার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে মোদি বলেন, ‘কোরআনে ‘‘ইলম’’ (জ্ঞান) শব্দটি ৮০০ বার উল্লেখ করা হয়েছে। ‘‘আল্লাহ’’ শব্দটির পর এটি সবচেয়ে বেশিবার উল্লিখিত শব্দ। এই ধর্মে এটিই হলো জ্ঞানের গুরুত্ব।’

এডুকেশন অব মুসলিমস (মুসলিমদের শিক্ষা) নামের বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন মোদি। বইটি যৌথভাবে লিখেছেন ইতিহাসবিদ জে এস রাজপুত এবং ভারতীয় ইসলামি সংস্কৃতি কেন্দ্রের প্রেসিডেন্ট সিরাজুদ্দিন কোরেশি।

কোনো ইফতার পার্টির আয়োজন না করে ঐতিহ্য ভেঙেছেন মোদি। হয়তো এবারও কোনো ইফতার পার্টির আয়োজন করবেন না। তবে রমজান উপলক্ষে মুসলিমদের উদ্দেশে শুভকামনা জানিয়েছেন তিনি।

মোদি তার বক্তব্যে ‘বহুমত’-কে ভারতের সবচেয়ে বড় শক্তি হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সৌভাগ্যবান এ কারণে যে, বহুমতে মানুষের বসবাস সত্ত্বেও আমরা একই ভাষায় কথা বলি এবং একই সংস্কৃতি অনুসরণ করি। ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির মধ্যে এই বোঝাবুঝি পৃথিবীর আর কোথাও সম্ভব নয়। একে অপরের মধ্যে বোঝাপড়া বিভিন্ন সম্প্রদায়ের সঙ্গে যোগসূত্র স্থাপনের চালিকাশক্তি।’

১৮৯৪ সালে আহমেদাবাদে মুসলিমদের শিক্ষাবিষয়ক একটি সেমিনারের কথা উল্লেখ করেন মোদি। তিনি স্মরণ করিয়ে দেন, ওই সেমিনারের উদ্যোক্তা ছিলেন একজন হিন্দু। সেমিনার থেকে মুসলিম মেয়েদের শিক্ষার জন্য একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়। মোদি বলেন, এ থেকে বোঝা যায় বছরের পর বছর ভারতে কীভাবে জ্ঞান ভাগাভাগি করে নেওয়া হয়েছে।

উদারতা ও সময়োপযোগিতা সম্পর্কে মোদি বলেন, ‘কোনো সম্প্রদায় বা ধর্ম আধুনিকতাকে উপেক্ষা করতে পারে না। আমরা যদি আধুনিকতাকে ধারণ করতে না পারি, তবে বিশ্ব এগিয়ে যাবে, আমরা পেছনে পড়ে থাকব।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই