মেইন ম্যেনু

ইয়েমেনে ১২ শত আসামি জেল ভেঙে পালিয়েছে

সহস্রাধিক কারাবন্দি ইয়েমেনের জেল ভেঙে পালিয়ে গেছে। এর মধ্যে সন্দেহভাজন আল-কায়েদার জঙ্গিরা রয়েছে।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইয়েমেনের সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জেল ভেঙে পালানো আসামির সংখ্যা প্রায় ১ হাজার ২০০ জন। পালানোর আগে কারাবন্দিদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় পুলিশের। ইয়েমেনের তাইজ শহরে কারাগারটি অবস্থিত।

প্রেসিডেন্ট মানসুর আল হাদিকে সানা ও এডেন থেকে উৎখাত করার পর দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান তিনি। এরপর শুরু হয় গৃহযুদ্ধ। একদিকে হুতি বিদ্রোহীরা সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করছে, অন্যদিকে হাদিপন্থি যোদ্ধারা তা প্রতিরোধ করছে। হাদির সমর্থনে সৌদি আরবের নেতৃত্বে মধ্যপ্রাচ্যের সুন্নি দেশগুলো বিমান হামলা চালাচ্ছে হুতি বিদ্রোহীদের ওপর। এই অবস্থায় অরক্ষিত হয়ে পড়েছে ইয়েমেনের কারাগারগুলো।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এখনো পরিষ্কার হওয়া যায়নি, বন্দিরা কীভাবে পালিয়ে গেল।

ইয়েমেনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সাবা নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বলেছে, আল-কায়েদার সমর্থকরা বাইরে থেকে করাগারে হামলা চালায়। অন্যদিকে সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, কারাগারের মধ্যে জঙ্গিরা সংঘর্ষে লিপ্ত হলে, সেই সুযোগে অনেকে পালিয়ে যায়। আবার বার্তাসংস্থা এপি জানিয়েছে, হুতি বিদ্রোহী ও তাদের প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে কারাগারে তুমুল সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়লে কারারক্ষীরা সরে যায়। এই সুযোগে কারাদ্বার ভেঙে বেরিয়ে যায় আসামিরা।

২৬ মার্চ থেকে সৌদি আরবের নেতৃত্বে ইয়েমেনে বিমান হামলা শুরু হওয়ার পর জেল ভেঙে পালানোর এটি তৃতীয় ঘটনা।






মন্তব্য চালু নেই