মেইন ম্যেনু

ই-মেইল ফাঁস: ডেমোক্রেট প্রধানের পদত্যাগের ঘোষণা

ডেমোক্রেটিক দলের কয়েক শীর্ষ নেতার গোপন ইমেইল ফাঁসের জের ধরে রোববার পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটির (ডিএনসি) প্রধান ডেবি ওয়াসারম্যান শুল্জ। জাতীয় দলের কনভেনশনের মাত্র একদিন দলের সাবেক মনোনয়ন প্রত্যাশী বার্নি স্যান্ডার্স ও তার সমর্থকদের চাপের মুখে তিনি এই ঘোষণা দিলেন। সিএনএনসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো এ খবর জানিয়েছে।

ফিলাডেলফিয়ায় ডেমোক্রেটেদের সোমবার (২৫ জুলািই) থেকে চারদিনের জাতীয় কনভেনশন শুরু হতে যাচ্ছে। এখানে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনকে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য প্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন ডেমোক্রেট নেতারা। দেশটিতে এই প্রথম একজন নারীকে দলীয় প্রার্থী করতে চলেছে আমেরিকার একটি প্রধান রাজনৈতিক দল।

কিন্তু সম্মেলন শুরু হওয়ার আগেই সমস্যা দেখা দিল। উইকিলিকস ওয়েবসাইটে গত ২২ জুন ডেমোক্রেট দলের ৭ নেতার ১৯ হাজারের বেশি ইমেইল প্রকাশিত হয়। সেখানে দেখা যায়, ডেমোক্রাটিক দলের নেতারা সেনেটার বার্নি স্যান্ডার্স যাতে প্রার্থী না হতে পারেন সেজন্য চেষ্টা চালিয়েছিলেন। কিছু নেতা স্যান্ডার্সের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এবং তার নির্বাচনী প্রচারণা নিয়েও তাদের আস্থা ছিল না। এমনকি তাকে নিয়ে নানা বিদ্রুপ ও সমালোচনা করেছিলেন কয়েকজন নেতা।

এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ভার্মন্ট অঙ্গরাজ্যের সিনেটর স্যান্ডার্স বলেন,‘আমি মনে করি এসব ইমেল ফাঁস হওয়ার পর ডেমোক্রেট ন্যাশনাল কমিটিতে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন ডেবি ওয়াসারম্যান শুল্জয়ের। তার পদত্যাগ করা উচিত।’

যার ফলে রোববার শুল্জয়ের এই ঘোষণা। এমনকি কনভেনশনে বক্তৃতা দাতাদের তালিকা থেকেও নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন শুল্জ। নিজের পদত্যাগের সিদ্ধান্তকে দলের জন্য সঠিক হিসেবে উল্লেখ করেছেন তিনি। স্যান্ডার্সে অভিযোগ মেনে নিয়ে আরো তিনি বলেন,‘প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন প্রক্রিয়া চলাকালে দলের নেতাদের সবসময় নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করা উচিত।’ তিনি মনে করেন ২০১৬ সালের এই ঘটনাটি নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে না।

তবে এ নিয়ে বিক্ষুব্ধ স্যান্ডার্সের সমর্থকরা। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে রোববার ফিলাডেলফিয়ার কনভেনশন স্থলের দিকে রওয়ানা হয়েছেন হাজার হাজার সমর্থক। তাদের ধারণা দলের শীর্ষ নেতারা স্যান্ডার্সের প্রচারণায় স্যাবোটাজ করার চেষ্টা করেছে। এই ঘটনার পর রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট নির্চানের লড়াইয়ে ডেমোক্রেটরা কতটা একতাবদ্ধ থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। যদিও ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী হিলারির প্রতি আনুষ্টানিক সমর্থন ব্যক্ত করেছেন স্যান্ডার্স।






মন্তব্য চালু নেই