মেইন ম্যেনু

ঈদের আগে-পরে ৬ দিন ট্রাক-লরি চলাচল বন্ধ

সাধারণ মানুষের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে কোরবানির ঈদের আগে-পরে ছয় দিন জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে ট্রাক-লরি চলাচল বন্ধ রাখা হবে।

বুধবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় মন্ত্রণালয়।

কমিটির সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক বলেন, “ঈদের সময় সাধারণ মানুষের বাড়ি যাওয়া নির্বিঘ্ন করতে মন্ত্রণালয় তাদের পদক্ষেপগুলো কমিটিকে জানিয়েছে।”

বৈঠক শেষে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এম এ এন ছিদ্দিক বলেন, “আমাদের আন্তঃমন্ত্রণালয় সভার সিদ্ধান্তগুলো কমিটিকে জানানো হয়েছে।

“গত রোজার ঈদের যেসব সিদ্ধান্ত ছিল, এবারও তাই। ঈদের আগে তিন দিন এবং পরে তিন দিন মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে ট্রাক-লরি বন্ধ থাকবে।”

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জনস্বার্থ বিবেচনায় যানজট নিরাসনে জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে ট্রাক ও লরি চলাচল বন্ধ রাখা হবে। খাদ্য ও পচনশীল দ্রব্য, ওষুধ, জ্বলানি বহনকারী যানবাহন, কাঁচা চামড়া এর আওতামুক্ত থাকবে।

বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, কোরবানির ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারিত ভাড়া নেওয়া, অতিরিক্ত যাত্রী ও মালামাল বহন না করা, মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা, ভিজিলেন্স টিম গঠন, কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা এবং সড়ক মহাসড়কের ১৬টি পয়েন্টে পুলিশ প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য ১ হাজার রোভার স্কাউট নিয়োজিত করা হবে।

কমিটি ঘরমুখো মানুষের নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত এবং মহসড়কগুলো যানজটমুক্ত রাখার ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে।

এছাড়া মহাসড়কের পাশে যাতে কোনোভাবেই পশুর হাট বসতে না পারে, সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক, নাজমুল হক প্রধান, লুৎফুন নেছা ‍ও নাজিম উদ্দিন আহমেদ অংশ নেন।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও বৈঠকে ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই