মেইন ম্যেনু

ঈদ শেষে রাজধানীমুখী মানুষ

ঈদুল আজহার ছুটি শেষ হচ্ছে আজ শুক্রবার। ফলে ঈদ উদযাপন শেষে রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। প্রিয়জন, বন্ধু-বান্ধব আর আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ উপভোগ শেষে নাড়ির টানে বাড়ি যাওয়া কর্মজীবী মানুষরা এখন রাজধানী মুখী। আগামীকাল শরিবার থেকে আবারো শুরু হবে কর্মময় জীবন।

তবে ঈদ উদযাপনে নাড়ির টানে গ্রামের বাড়ি থেকে রাজধানী ঢাকায় আসতে শুরু করলেও রাজধানীর কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসতে কিছুটা সময় লাগবে বলে মনে করছেন রাজধানীবাসীরা। ঢাকার প্রধান সড়কগুলোতে এখনো মানুষ ও যানবাহনের চলাচল সীমিত। হোটেল, রেস্টুরেন্ট তেমন খোলেনি। অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ। মূলত জনবহুল রাজধানী এখনো অনেকটাই ফাঁকা।

এদিকে, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঈদ উদযাপন শেষে রাজধানী ঢাকায় ফিরতে ভোগান্তি শিকার হচ্ছেন বলে জানা গেছে। বাস, ট্রেন, লঞ্চসহ বিভিন্ন যানবাহনে ঢাকায় ফিরতে এ ভোগান্তির সম্মুখীন হচ্ছেন তারা। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রাজধানী ফেরার দূরপাল্লার বাস বা ট্রেনের অগ্রিম টিকিট আগেই শেষ হয়ে গেছে। ফলে যারা টিকিট পাননি তারা বাধ্যে হয়েই তুলনামূলক খারাপ বা লোকাল গাড়িতে রাজধানীতে ফিরছেন।

ট্রেনের ক্ষেত্রে ট্রেনগুলোতে উপচে পড়া ভিড়ের মধ্যেই যাত্রীরা গন্তব্যে পৌঁছাছেন। কমলাপুর রেল স্টেশনে সকাল থেকেই ভিড় লক্ষ্য করা গেছে ঈদ শেষে রাজধানী ফেরত মানুষের।

রাজশাহীর তাহেরপুর থেকে পুঠিয়া-নাটোর হয়ে ঢাকায় ফিরেছেন হুমায়ন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, বাস সব স্টোপেজ থেকে যাত্রী তুলছে। বাস ভরে গেলে ছাদ, চালকের পাশে যাত্রীদের বসিয়ে এনেছে। এছাড়াও তুলনায়মূলক ভাড়াও বেশি নিয়েছে।

ওই বাসের সুপারভাইজার বলেন, আসলে এই সময়ে আমাদের একটু ব্যবসা হয়। তাই একটু লোক তুলতে তুলতে আসছি। আর ঈদের সময় আমরা ভাড়া এমনই রাখি। ঈদের সময় শেষ হয়ে গেলে আবার ভাড়া কম রাখবো।






মন্তব্য চালু নেই