মেইন ম্যেনু

উচ্চতা বাড়লে বেড়ে যাবে ক্যান্সারের ঝুঁকি

ক্যান্সার বর্তমান পৃথিবীর মানুষের কাছে এমন একটি ভয়াবহ সমস্যা যার কোন প্রতিকার নেই, নেই কোন প্রতিরোধের উপায়ও। প্রতিনিয়ত বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করে চলেছেন এই মরণব্যধির ঔষধ তৈরি করতে। কিন্তু কোন কিছুর প্রতিষেধক তো কেবল তখনই তৈরি করা যায় যখন কিনা সেটার উত্পত্তির কারণ জানতে পারা যায়। আর তাই বছরের পর বছর ধরে বিজ্ঞানীরা চেষ্টা চালাচ্ছেন ক্যন্সারের মূল কারণকে খুঁজে বের করার। সম্প্রতি যে গবেষণায় আরো এক ধাপ এগিয়ে গিয়ে মানুষের, বিশেষ করে নারীর উচ্চতার সাথে তাদের শরীরের ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যাওয়ার এক অসাধারণ ও ভীতিপ্রদ তথ্য খুঁজে পেয়েছেন তারা।

সম্প্রতি সুইডিশ একটি গবেষণায়প্রায় ৫ মিলিয়ন মানুষের ওপর অনুসন্ধানের মাধ্যমে এই তথ্য পান গবেষকেরা। এতে জানা যায়, তুলনামূলকভাবে লম্বা মানুষের ভেতরে স্কিন ও ব্রেস্ট ক্যান্সার হবার ঝুঁকি বেশি থাকে। এছাড়াও, প্রতি ৪ ইঞ্চি বা ১০ সেন্টিমিটার উচ্চতা বৃদ্ধিতে নারীদের ভেতরে ১৮ শতাংশ ও পুরুষদের ভেতরে ১১ শতাংশ ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায় বলে জানান তারা ( গার্ডিয়ান )।

তবে তাই বলে লম্বা মানুষদের ভয় পাওয়ার খুব একটা কারণ নেই বলে জানান গবেষকেরা। তবে কিছু বাড়তি ব্যাপারে খেয়াল রাখতে বলেন তিনি অধিক উচ্চতাসম্পন্ন মানুষদেরকে। আর সেগুলো হচ্ছে-

১. ধুমপান না করা

২. অ্যালকোহল না পান করা

৩. স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যাভ্যাস তৈরি করা ( বিবিসি )

ইউরোপীয়ান সোসাইটি ফল পেডিওট্রিকাল এন্ডোক্রিনোলজি সম্মেলনে উপস্থাপিত এই গবেষণায় জানানো হয় যে, তুলনামূলকভাবে লম্বা নারীদের ভেতরে অন্যদের চাইতে স্কিন ক্যান্সার হবার আশংকা থাকে ৩০ শতাংশ বেশি। আর ব্রেস্ট ক্যান্সারের সময় সেটা দাড়ায় ২০ শতাংশে। যদিও কেন এমনটা হয় সেটা এখনো পর্যন্ত বের করতে পারেননি গবেষকেরা।

শুধু সুইডিশ গবেষকেরাই নন, সম্প্রতি নিউ ইয়র্কের অ্যালবার্ট আইনস্টাইন কলেজের ছাত্রদের করা একটি গবেষণানুসারে নারীদের উচ্চতা ও ওজনের সাথে ক্যান্সারের বেশ ভালো একটা সম্পর্ক রয়েছে। প্রতি ১০ সেন্টিমিটার উচ্চতা বৃদ্ধির জন্যে নারীদের ভেতরে ২৯ শতাংশ ত্বকের ক্যান্সার হবার আশংকা বৃদ্ধি পায় বলে জানান তারা ( ফোর্বস )। তবে শুধু ত্বকের ক্যান্সারই নয়, এ ক্ষেত্রে বেড়ে যায় থাইরয়েড, কিডনি, রেকটাম, ওভারি, কোলোন ও ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ার সম্ভাবনাও।

গবেষকদের ধারণা অনুসারে, লম্বা মানুষের শরীরে অতিরিক্ত কোষ থাকে, আকারে বড় কোষ থাকে এবং তার খাবার গ্রহণের পরিমাণও একটু আলাদা ও বেশি হয়ে থাকে। আর সম্ভবত এগুলোর কোন একটা কারণেই তাদের ক্যান্সার হবার ঝুঁকি বেশি থাকে। তবে অনেক গবেষকই অবশ্য এ ধারণাকে উড়িয়ে দিয়েছেন।

তাদের মতে, ক্যান্সারের সাথে উচ্চতার সম্পর্ক থাকলেও থাকতে পারে- কেবল এই ধারণার ওপর ভিত্তি করে লম্বা মানুষ, বিশেষ করে নারীদের ভয় পাওয়ার কোন কারণই নেই। মদ, সিগারেট থেকে দূরে থেকে, খাবার ঠিকঠাক মতন গ্রহন করলে এবং কর্মক্ষম থাকলে ক্যান্সার হবার ঝুঁকি কমানো যায় বলে সবাইকে অভয় দেন তারা।






মন্তব্য চালু নেই