মেইন ম্যেনু

উদযাপিত হচ্ছে বিজয়া দশমী, বিসর্জন কাল

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দূর্গাপূজার আজ বৃহস্পতিবার মহানবমী ও বিজয়া দশমী।

সবুজ স্বপন সংঘের সভাপতি বিপ্রদেশ পোদ্দার জানান, পুঞ্জিকা অনুসারে আজ নবমী ও দশমী উদযাপন করা হচ্ছে। তবে দুর্গা মাকে বিসর্জন দেওয়া হবে আাগমীকাল সন্ধ্যায়।

ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশনের সহ-সম্পাদক এবং পূজার তন্দ্রধারক স্থিরাত্মানন্দ মহারাজও (নিরঞ্জন মহারাজ) রাইজিংবিডিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

`নবমী নিশি যেন আর না পোহায়, তোকে পাবার ইচ্ছা মাগো কভু না ফুরায়, রাত পোহালেই জানি আবার হবে ভোর, আবার তোকে পাবো মোরা একটি বছর পর`_ এমন মনোকামনায় আজ মহানবমী ও বিজয়া দশমী পালন করবে হিন্দু সমপ্রদায়। কারণ আর মাত্র এক দিন পরেই মর্ত্য ছেড়ে কৈলাশে স্বামীগৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা।

আর পেছনে ফেলে যাবেন ভক্তদের চার দিনের আনন্দ-উল্লাস আর বিজয়ার দিনের অশ্রু। বৃহস্পতিবার চন্দ্রের নবমী তিথিতে সারা দেশে অনুষ্ঠিত হয় মহানবমী পূজা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় মহানবমী কল্পারম্ভ ও বিহিত পূজা আরম্ভ হয়।

মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটি জানায়, ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে আজ সকাল সাড়ে ৬টায় মহানবমী কল্পারম্ভ ও বিহিত পূজা শুরু হয়। আর সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে দশমী বিহিত পূজা ও দর্পণ বিসর্জন হয়। আর এরই মধ্য দিয়ে শেষ হয় বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান।

এ বছর নবমী ও দশমী তিথি একই দিনে থাকায় শাস্ত্রীয় বিধান মেনে পূজার সব আনুষ্ঠানিকতা আজ শেষ হয়ে যাবে। অবশ্য আজ বিজয়া দশমী হলেও ভক্ত ও দর্শনার্থীরা সারা দিন রাজধানীর বিভিন্ন মণ্ডপে প্রতিমা দেখতে যেতে পারবেন। কারণ পূজা উদযাপন পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুসারে সারা দেশে প্রতিমা বিসর্জন হবে আগামীকাল শুক্রবার।

শাস্ত্র অনুযায়ী, শাপলা, শালুক ও বলিদানের মাধ্যমে দেবীর পূজা হয়। নানা আচারের মধ্য দিয়ে মহানবমীর পূজা শেষে যথারীতি অঞ্জলি নিবেদন ও প্রসাদ বিতরণ হয়।

পাঁচদিনের শারদীয় দুর্গাপূজার মহাষ্টমী ছিল বুধবার। এদিন রামকৃষ্ণ মিশনে এভাবেই অনুষ্ঠিত হয় পূজার সবচেয়ে আকর্ষণীয়পর্ব কুমারী পূজা। মাতৃভাবে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা করে তাতে জগজ্জননীর উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করাই কুমারী পূজা। গতকাল সারাদেশের রামকৃষ্ণ মিশন ছাড়াও মিশন নিয়ন্ত্রিত বিভিন্ন মঠেও কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কুমারী মা আসার আগেই চলে আসে তার আসন। পদ্ম ফুলের আদলে তৈরি এ আসন আসার পরই ভক্তদের অপেক্ষা আরো বেড়ে যায়। অপেক্ষা শেষে সকাল ঠিক ১১টায় বাবার কোলে চড়ে আসে `কুমারী মা` ।






মন্তব্য চালু নেই