মেইন ম্যেনু

উদ্ভট স্থাপনা নিষিদ্ধ করলো চীন (দেখুন ছবিতে)

স্থাপত্যকলা ব্যবহার করে বিচিত্র ভবন নির্মাণ করা আধুনিক বিশ্বের একটা অভ্যাসে দাঁড়িয়ে গেছে। তবে এই অতি আধুনিক বা অনেক ক্ষেত্রে উদ্ভট স্থাপত্যগুলো আধুনিক সভ্যতার নিদর্শন হিসেবেও পরিচিত। এ ধরনের নকশা শিল্পের অগ্রগতিতে মানুষের কলাকৌশলের পারদর্শিতা নিয়ে একধরনের চমক ধরিয়ে দেয়। নতুন নতুন নকশায় মুগ্ধতা যেমন আছে, তেমনি আবার বিরক্ত হন অনেকে। চীনা সরকারও এই জাতীয় উদ্ভট সুন্দর স্থাপত্য ভবনের উপর বিরক্ত।

এই বিরক্তির কারণ শুধু এই না যে, প্রকৌশলীরা কিম্ভূতকিমাকার ভবন তৈরি করছেন। বরং অনেক ক্ষেত্রে চীনা প্রকৌশলীরা যে পাশ্চাত্য সংস্কৃতি ও দর্শন অনুসরণ সেই মত নকশা করছেন এবং চীনের সাথে খাপ খাওয়ানোর চেষ্টা করছেন সেটাও চীন সরকারের বিরক্তির আরেকটা বড় কারণ। ঠিক এই কারণেই তারা এরকম অনেক অদ্ভুত ভবনের কড়া সমালোচনা করেছেন। শুধু সমালোচনা করেই ছাড়েননি, এবার তারা আইন করে নিষিদ্ধ করেছেন এই জাতীয় ভবন।

ব্যাপক শিল্পায়নের সাথে সাথে বিগত এক দশকে চীনে গড়ে উঠেছে অত্যাধুনিক সব ভবন। প্রকৌশলীদের কল্পনার দৌড়ের বিচিত্রতা ফুটে উঠেছে ‘চায়ের পেয়ালা’ কিংবা ‘প্যান্ট’ আকৃতির ভবনের নকশায়।

এই জাতীয় নকশার ভবন চীন সরকার আর অনুমতি দেবেনা। নতুন আইন অনুসারে এখনকার ভবনগুলো হতে হবে দৃষ্টি নান্দনিক, পরিবেশ বান্ধব এবং অর্থ সাশ্রয়ী। অন্যকথায় বলতে গেলে এখনকার ভবন হতে হবে সরকারের মন মত। চীনে ঠিক কি ধরনের ভবন ইতিমধ্যে নির্মিত হয়েছে তার কিছু নমুনা নিচে তুলে ধরা হলো :

2016_02_23_16_57_32_xvxavoDeAwEvdjKiOQEo1yhmmTAuAf_original

দ্যা গুয়াঞ্জু সার্কেল নামের এই ভবনটি নকশা করেছিলেন ইতালীয় স্থপতি জোসেফ ডি প্যাসকেল। ভবনটি উদ্বোধন করা হয় ২০১৩ সালে। এটা বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু বৃত্তাকৃতির ভবন, উচ্চতা ১৩৮ মিটার।

2016_02_23_16_58_52_pqmpUBd0HiQON6Y9QwDiZUMsblv6T7_original

চায়ের পেয়ালা আকৃতির এই ভবনটি চীনের জিয়াংজু প্রদেশে অবস্থিত। এটা প্রথমে একটা ব্যবসা কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করার কথা থাকলেও, বর্তমানে এটি প্রদর্শনী কেন্দ্র।

2016_02_23_16_59_35_6Bq8ntuXsgDaB7OxuRPLh0Pov68AKr_original

চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল সিসিটিভির প্রধান কার্যালয় হিসেবে পরিচিত এই ভবনটিকে অনেকে ডাকেন ‘বিগ প্যান্টস’ বলে।

2016_02_23_17_00_15_v5gTGeJ9iEGQJV3q9sU0abo1XKB578_original

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র পিপলস ডেইলির এই ভবনটি দেখতে অনেকটা পুরুষাঙ্গের মত। বেইজিংয়ে অবস্থিত ১৫০ মিটার লম্বা এই ভবন সিসিটিভি ভবনের খুব কাছেই অবস্থিত।

2016_02_23_17_01_06_M65ge75TfUd9adyJ3gNZYTv1dFgwZm_original

দ্যা ফনিক্স টাওয়ার হিসেবে খ্যাত এই ভবনটি সমাপ্ত হবে আর কয়েক বছরের মধ্যেই। ভবনের বাইরে লাগানো থাকবে সৌর বিদ্যুতের প্যানেল। লম্বা হবে ১ কিমি।

2016_02_23_17_01_45_5beFzrqCLORiBDLPFDTXquHZWTFwJe_original

দ্যা গেট অব দ্যা ওরিয়েন্ট হিসেবে পরিচিত জিয়াংজু প্রদেশের এই ভবনটি নির্মিত হয়েছিল ২০১৪ সালে। সিসিটিভি ভবনের মত এটাও প্যান্ট আকৃতির।

2016_02_23_17_02_21_iqlf2YXANnCc34Au3zLZt4IranFri2_original

দ্যা সানরাইজ ইস্ট কেমপিনস্কি হোটেল বেইজিংয়ের ইয়াঙ্কি লেকের পাড়ে অবস্থিত।

2016_02_23_17_02_59_AcSgAplCMm0UHNQX4y7e1W45V7IC9J_original

নাটকীয় এবং উপবৃত্তাকার দেখতে আরেকটি হোটেল হচ্ছে শেরাটন হট স্প্রিং রিসোর্ট। এটি তাইহু লেকের পাড়ে অবস্থিত।

2016_02_23_17_03_42_vXGM6TkM1zeNI8QRxYqR9Y4FhnKJ8D_original

দ্যা সিটি লাইব্রেরী এবং দ্যা ওরডস মিউজিয়াম অবস্থিত মঙ্গলীয় শহরে। এই শহরের জনসংখ্যা কম, কিন্তু স্থাপত্যে আধুনিক।

সূত্র : বিবিসি






মন্তব্য চালু নেই