মেইন ম্যেনু

এই জিনিসটি বানাতে না পেরেই বিশ্বে পিছিয়ে চীন!

কলম তরাবরীর থেকেও শক্তিশালী। আমেরিকা, রাশিয়ার মত মহাশক্তিধর দেশগুলোকে আজ চোখ রাঙিয়ে কথা বলে যে চীন, তাকেও শেষমেশ নতিস্বীকার করতে হল সামান্য কলমের কাছে৷ সাবমেরিন থেকে স্যাটেলাইট, পরমাণু বোমা থেকে কাপড় সেলাইয়ের সুূচ- সর্বত্রই বিশ্ববাজার দাপিয়ে বেড়াচ্ছে যে চীন, সে বল পয়েন্ট পেন বা ডট পেন বানাতে পারে না।

হাই-স্পিড বুলেট ট্রেন থেকে শুরু করে স্মার্ট ফোনের মত উন্নত প্রযুক্তির সামগ্রী বানাতে পারদর্শী চীনের কাছে নাকি নেই ডট পেন বানানোর দক্ষতা।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবর অনুযায়ী, ডট পেনের রিফিলের মাথায় থাকা ক্ষুদ্র বল, যেখান থেকে লেখার কালি বের হয়, তা নাকি চিন বনাতে পারে না৷ যার ফলে চীনা নির্মাতাদের ওই বলগুলো জাপান বা তাইওয়ান থেকে কিনতে হয়। সূক্ষ্ম প্রযুক্তিতে চিনের আকাশছোঁয়া অগ্রগতির সমস্তটাই নাকি মহাকাশ বিজ্ঞান ও সামরিক ক্ষত্রে নিয়োজিত৷ ফলে ডট পেনের মতো একটি সামান্য বস্তু গুরুত্ব পায়নি।

হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জর্জ হুয়াং বলেন সূক্ষ্ম কারিগরির ক্ষেত্রে চীন এখনও পিছিয়ে৷ ডট পেন, চীনের এই দুর্বলতার একটি উদাহরণ৷ কম্পিউটার ও স্মার্টফোনের ক্ষেত্রেও নাকি চীন তাইওয়ান ও জাপান থেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো আমদানি করে৷ তবে বেজিং নাকি এবার ‘মেড ইন চায়না-২০২৫’-এর অন্তর্গত ঘরোয়া উৎপাদনে আরও বেশি করে জোর দেবে৷ ইতিমধ্যে দেশের একটি ল্যাবরেটরিতে ডট পেনের বল বানানোর কাজ চলছে বলে খবর৷ যদি এই প্রয়োগ সফল হয় তাহলে আগামী দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে চিন জাপান ও তাইওয়ান থেকে বল কেনা বন্ধ করে দেবে। -সংবাদ প্রতিদিন।






মন্তব্য চালু নেই