মেইন ম্যেনু

এই প্রথম হিজাবের পক্ষে রায় দিলো ইউরোপীয় আদালত

এই প্রথম কোন ইউরোপীয় আদালত হিজাব নিষিদ্ধের ব্যাপারে কোন মামলার রায় দেয়। এর আগে বেলজিয়ামের আদালতে একজন নারী তাকে হিজাব পরার অভিযোগে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার জন্য ক্ষতিপূরণ মামলা করে। ওই নারী একটি বেলজিয়াম কোম্পানিতে রিসিপশনিস্ট পদে কাজ করত।

ইউরোপীয় কোম্পানিগুলোকে কর্মস্থল থেকে হিজাব উঠিয়ে দিতে পারবে কিন্তু তারা যদি অন্যান্য ধর্মীয় প্রতীক ক্রুশ বা অন্যান্য ধর্মীয়ও রাজনৈতিক প্রতীক নিষিদ্ধ করে। অন্যথায় হিজাব উঠিয়ে দেয়া উচিত হবে না। বুধবার ইউ আদালত এই ঐতিহাসিক রায় দেয়।

বেলজিয়াম আদালত ইউরোপীয়ান আদালত কে জিজ্ঞাসা করে, হিজাব পরা ইউরোপীয় আইনের নিদিষ্ট ধর্মের প্রতীক বহন সম্পর্কিত আইনের সাথে সাংঘর্ষিক কিনা? আদালত জানায়, সাধারণত হিজাব ইউরোপীয় দেশগুলোতে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে আসছে। তবে সবার ক্ষেত্রে একই নিয়ম প্রযোজ্য। কর্মস্থলে হিজাব নিষিদ্ধ করলে অন্যান্য ধর্মীয়, রাজনীতিক, জাতিগত প্রতীকও নিষিদ্ধ করতে হবে।

এ্যাডভোকেট জুলিয়ান কোকোট বলেন, চাকরিজীবীরা সাধারণত ধর্মীয় চিহ্ন বহন করতে চায়, কিন্তু তুমি এখানে বয়স, লিঙ্গ বা জাতীয়তা নিয়ে আসতে পারবে না।

তবে ফ্রান্স এবং বেলজিয়ামের সরকারি প্রতিষ্ঠান এবং বিদ্যালয়ে হিজাব নিষিদ্ধ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই