মেইন ম্যেনু

এই ১৫টি গুণ থাকলে আপনি সফলতা কেউ আটকাতে পারবে না

সফল হতে আমরা কে না চাই? সফল হওয়ার জন্য কত কিছুই তো করছি। দিনরাত খেটে মরছি এই সফলতার নাগাল পেতে। এরপরও ক’জন পেরেছি সফল হতে? আবার কেউ কেউ চোখের সামনেই রাতারাতি সাফল্যের চুড়ান্ত শিখরে। আবার কেউ রাতদিন খেটেও সফলতার নাগাল পাচ্ছেন না!

প্রতিটি সফলতার পিছনেই থাকে সফল একটা গল্প। আজ যারা সফল, তাদের মধ্যে বিশেষ কিছু গুণ রয়েছে, যার জন্য তারা সফলতার চুড়ান্ত শিখরে পৌঁছাতে পেরেছেন। আর যারা ব্যর্থ, তাদের মধ্যে বিশেষ ওই গুণাবলি নেই। যার জন্য তারা সফলকাম হতে পারেননি।

তাই বলে ভাববেন না। সফল আপনিও হতে পারবেন। চেষ্টা করুন। আর জেনে নিন কোন কোন গুলো থাকলে আপনার সফলতা কেউ আটকাতে পারবে না।

১। সব সময় কিছু না কিছু করার ইচ্ছা। নতুন নতুন আইডিয়া আসতেই থাকে। সেগুলির ত্রুটিও বুঝতে পারেন। নিজেকে সংশোধন করেন বারবার।

২। সফল ব্যবসায়ীদের দেখে আপনি অনুপ্রাণিত হন। তার সঙ্গে আলাপ করতে কথা বলতে মন চায়।

৩। আপনাকে কী করতে হবে সেটা অন্য কেউ বলে দেবে এটা আপনার পছন্দ নয়। নির্দেশ দিতে বেশী পছন্দ করেন।

৪। সব সময় নতুন জিনিস শিখতে আগ্রহী। কীভাবে কী করতে হবে, কীভাবে কী করা যায়, কোথায় গেলে নতুন কিছু শিখতে পারবেন এগুলিতেই বেশী আগ্রহ।

৫। যদিও টাকাই সব নয় তবু আপনি প্রচুর টাকার স্বপ্ন দেখেন। কোনওভাবে প্রচুর টাকার স্বপ্ন ছাড়তে পারেন না।

৬। ঝুঁকি ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করাতেই আপনার বেশী আনন্দ। কোনও কিছুতে হার মানতে আপনি নারাজ। বিফল হলে আপনি নতুন করে শুরু করতে পারেন।

৭। আপনি নতুন নতুন মানুষের সঙ্গে পরিচিত হতে আগ্রহী, লজ্জা পান না। একটি লক্ষ্য নিয়েই আপনি এগিয়ে যেতে পছন্দ করেন।

৮। আপনি অপরকে সাহায্য করতে পছন্দ করেন। কীভাবে অন্যকে অনুপ্রাণিত করা যায়, তাও ভাবেন।

৯। নিজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে মানুষকে বলতে পছন্দ করেন। কোনও কাজের সুযোগ এলেই আপনি তাতে যুক্ত হতে চান।

১০। একজন মানুষ কী অবস্থায় আছে তা বিচার না করে আপনি বিচার করেন তাকে নিয়ে কী করা সম্ভব। প্রচন্ড বিপদেও আপনি খুব স্থীরভাবে চিন্তা করতে পারেন।

১১। সময় নষ্ট পছন্দ করেন না। যে কাজে সময় নষ্ট হবে তা করা থেকে নিজেই নিজেকে বিরত রাখেন।

১২। আপনি যুক্তি পছন্দ করেন, আবেগ নয়। আবার দরকারে মানুষের আবেগ বুঝতে চেষ্টা করেন। সম্মান দেন।

১৩। আপনি অপর কেউ ভাল কিছু বললে তা নির্দ্বিধায় মেনে নিয়ে সেই অনুযায়ী নিজেকে পরিবর্তন করেন।

১৪। আপনি নিয়মিত নিজেকে আপগ্রেড করেন। বাড়ি, গাড়ি, মোবাইল কিংবা টেকনোলজি, সবেতেই আপনি ওয়াকিবহাল থাকেন।

১৫। আপনি নতুন প্রযুক্তিকে ভালবাসেন। নিয়মিত খবর এবং বই পড়েন। কাজ করতে করতে আপনার সময়ের খেয়াল থাকে না।






মন্তব্য চালু নেই