মেইন ম্যেনু

এই ৫ কারণে সহবাস করতে রাজি হয় মেয়েরা

স্বামী-স্ত্রীর সহবাসের মাধ্যমে একজন আরেকজনের কাছে ঘনিষ্ট হন। সহবাসের ক্ষেত্রে, নারীদের চেয়ে পুরুষরাই বেশি আগ্রহ দেখিয়ে থাকেন। সহবাস, সেক্স এই বিষয়গুলি নিয়ে পুরুষদের উৎসাহ যতটা চোখে পরে, নারীদের উত্তেজনা সেই তুলনায় কম। কিন্তু তা বলে কি মহিলারা সহবাস করেন না? নাকি মহিলারা সহবাসে একেবারেই আগ্রহী হন না ? ব্যাপারটা মোটেই তেমন নয়। নারীরা সহবাসে যথেষ্ট আগ্রহী হন এবং রতিক্রিয়ায় সমানভাবে অংশও নেন। কিন্তু সমাজ, পরিবার, আত্মীয় এসবের কথা চিন্তা করে প্রাথমিকভাবে সহবাসে আগ্রহ দেখাতে ভয় পান। কিন্তু পুরুষরা যদি ৫টি কারণ নিয়ে মহিলাদের কাছে হাজির হন, তবে তাঁরা সন্মতি না দিয়ে থাকতে পারেন না।

মহিলাদের সহবাসে রাজি করানোর প্রয়োজনীয় সেই ৫ কারণ জেনে নিন এই প্রতিবেদনে।

১. প্রচলিত আছে রতিক্রিয়ায় সম্পূর্ণ ভাবে তৃপ্ত হলে মহিলারা স্বর্গসুখ পান। তাই সম্পূর্ণ আনন্দ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে মহিলারা সহবাসে সন্মতি দিতে পারেন।

২. প্রেম করলে বা কাউকে ভালোবাসলে, মহিলারা তাঁদের ভালবাসার মানুষের সঙ্গে সহবাস করতে আগ্রহ দেখান। সেইক্ষেত্রে সহবাসে কোনও সমস্যা থাকে না। কিন্তু একটা বিষয় এই ক্ষেত্রে বলা জরুরি। শুধুমাত্র কোনও মহিলার সঙ্গে সহবাসের জন্য তাঁর সঙ্গে ভালবাসার অভিনয় করা মোটেই কাম্য নয়।

৩. একটু কপটরাগ, প্রেমিকের অন্য নারীর প্রতি আসক্তি ইত্যাদি দেখলেও মহিলারা সহবাসে অনেকসময় সন্মতি দিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে নিজের ভালবাসার মানুষটিকে আপন করে রাখতেই সহবাস করতে আগ্রহ দেখান মহিলারা।

৪. অনেকসময় চাকরিতে উন্নতি, প্রমোশন বা অন্যান্য নানা সুবিধা পাওয়ার জন্য মহিলারা সহবাসে সন্মতি দিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে সুযোগ পাওয়ার লোভ এবং স্বার্থসিদ্ধি মহিলাদের সহবাস করার প্রধাণ কারণ হয়।

৫. এই শেষ কারণটি জানতে পারলে আপনারা অবাক হয়ে যাবেন। অনেক সময় ব্রেকআপের পর নিজের পুরনো সম্পর্ক ভুলতে মহিলারা সহবাস করার জন্য মুখিয়ে ওঠেন। পুরনো সম্পর্ক ভুলতেই না কি মহিলারা এমন অদ্ভুত পদক্ষেপ নিয়ে থাকেন। মহিলাদের এই পদক্ষেপকে কাজে লাগিয়েও কিছু পুরুষ তাঁদের সঙ্গে সহবাস করে থাকেন বৈকি।






মন্তব্য চালু নেই