মেইন ম্যেনু

একটি অঙ্গই বুঝিয়ে দেয় ‘সে’ কেমন মেয়ে!

একটি অঙ্গে অনেক কথা বলে দেয়। তাই তো মুখের আর এক নাম ‘মনের দর্পণ’। বিশেষজ্ঞরা বলেন, মানুষের মুখের কিছু বৈশিষ্ট্য দেখে বোঝা যায় চরিত্র।

১। যাঁদের মুখ লম্বার তুলনায় কম চওড়া, তাঁরা পরিস্থিতি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। আবার যাঁদের মুখ লম্বার তুলনায় বেশি চওড়া, তাঁরা জন্মগতভাবেই আত্মবিশ্বাসী।

২। চোখের উপরে থাকে ভ্রূ। কিন্তু যে মেয়ের ভ্রূ চোখ থেকে যত উপরে তার আত্মকেন্দ্রিকতা তত বেশি। সে ব্যক্তিগত পছন্দ অপছন্দকে বেশি গুরুত্ব দেয়।

৩। দু’টি ভ্রূয়ের মধ্যে দূরত্ব দেখে বোঝা যায় তাঁর কঠিন পরিস্থিতি সহ্য ক্ষমতা কেমন। দূরত্ব যত বেশি, সহ্য ক্ষমতা তত বেশি।

৪। উপরের ঠোঁট ও নাকের মধ্যে দূরত্ব দেখে আন্দাজ করা যায় কার মধ্যে হাস্যরস কেমন। দূরত্ব যত বেশি হাস্যরস তত বেশি।

৫। উপরের ঠোঁট যত মোটা হয়, তার কথায় ও আচরণে ততই ভদ্রতা এবং মহত্ব পাওয়া যায়।

৬। যে মেয়ের চোখের পাতা যত মোটা ও কোঁকড়ানো, তার বিশ্লেষণ ক্ষমতা তত বেশি। যাঁদের চোখের পাতায় কোনও ভাঁজ নেই, তাঁরা দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন।

৭। চোখের মণির রং বলে দেয় অনেক কিছু। যাঁর মণির রং যত গাঢ় তাঁর মনের গভীরতা তত বেশি। তাঁর আকর্ষণ ক্ষমতাও তত বেশি।






মন্তব্য চালু নেই