মেইন ম্যেনু

একটি ছবি ও বাবার বিরল ভালোবাসা

ক্লান্ত মেয়েটি নিশ্চিন্তে বাবার কাঁধে ঘুমিয়ে পড়েছে। ঘুমন্ত মেয়েকে নিয়েই বৈরুতের রাস্তায় কলম বিক্রি করছেন এক সিরীয় শরণার্থী।

তার এই ছবি তুলে অনলাইনে ছড়িয়ে দিয়ে সাহায্যের আবেদন জানালে তা ভাইরালে পরিণত হয়।

তার জন্য প্রায় ৮০ লাখ টাকা সাহায্য এসেছে। ছবিটি অনলাইনে হাজার হাজার শেয়ার হয়েছে।

আইসল্যান্ডের মানবাধিকারকর্মী গিসুর সিমনারসন বুধবার ছবিটি অনলাইনে প্রকাশ করেন। এরপর এতো অল্প সময়ের মধ্যে তিনি এই সাহায্য পান।

ছবিটি প্রকাশের পর তার নামও জানা গেছে। তিনি আবদুল হালিম আত্তার। তিনি ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত সিরীয়। তার দুটো সন্তান রয়েছে।

তিন বছর আগে লেবানন থেকে পালিয়ে এসে তিনি দামেস্কের অবরুদ্ধ ইয়ারমুক শরণার্থী শিবিরে বাস করছেন।

তার জন্য সাহায্যের আবেদন জানিয়ে অনলাইনে আবেদন করার আধা ঘন্টার মধ্যেই প্রায় ১২ লাখ টাকা জমা হয়। ১৯ ঘণ্টার পর জমার পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ৩৬ লাখ টাকায়।

শুক্রবার তার তোলা একটি ছবিতে দেখা যায় তিনি তার মেয়েকে আদর করছেন আর আইসক্রিম খাওয়াচ্ছেন।

সিমনারসন বলেন, ‘আমি চেয়েছিলাম বিশ্বব্যাপী সংগ্রামরত একটি মানুষকে সহায়তার জন্য একটা কিছু করতে। কিন্তু তারপর যে এমনটা ঘটবে তা আমি বিশ্বাস করতে পারিনি।’

আয়োজনকরা বলছেন, কোনো দাতব্য সংস্থার মাধ্যমে কিস্তিতে কিস্তিতে এই টাকা আত্তারকে দেয়া হবে। তাকে এ খবর জানানো হলে তিনি বলেছেন, তিনি অন্য সিরীয়দেরও সহায়তা করবেন।

তবে আত্তারের দুরাবস্থার যে ছবি প্রকাশিত হয়েছে তা কোনো অনন্য ঘটনা নয়। সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধের ফলে প্রায় ৪০ লাখ মানুষ ভিটেমাটি ছেড়ে উদ্বাস্তুতে পরিণত হয়েছেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এটাই সবচেয়ে বড় শরণার্থী সংকট। এসব শরণার্থী বিভিন্ন দেশের মানবেতন জীবন কাটাচ্ছেন। সূত্র: ডেইলি টেলিগ্রাফ






মন্তব্য চালু নেই