মেইন ম্যেনু

একে অপরের হাত ধরলেই বিপদ

চীনের চাংশা শহরের জিলিন বিশ্ববিদ্যালয়ে জারি করা হয়েছে নতুন আচরণবিধি। নতুন এই বিধি অনুসারে ছাত্রছাত্রীদের একে অপরের হাত ধরা এবং একই চামচ দিয়ে একে অপরকে খাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক জানায়, এই নিষেধাজ্ঞা ছাত্রদের সভ্য হয়ে গড়ে তুলতে সহায়তা করবে। তবে নতুন এই বিধি নিষেধ জারি করে বিশ্ববিদ্যালয়টি চীনের সংবাদমাধ্যমগুলোতে হাসির পাত্র হয়ে উঠেছে।

এই আইন বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু নির্দিষ্ট জায়গার জন্য প্রযোজ্য। যেমন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যান্টিন এবং সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো স্থানসমূহ। চীনের সংস্কৃতিবিষয়ক একটি সংবাদমাধ্যম জানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সহকারি শিক্ষক

একান্তভাবে প্রেমিক প্রেমিকাদের সঙ্গে কথা বলেছেন এবং তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে সবরকম শারীরিক সম্পর্ক এবং ক্যাম্পাসে অশালীন আচরণ থেকে বিরত থাকতে বলেছেন। তিনি আরো বলেন এই বিধি নিষেধ সবার জন্যই প্রযোজ্য।

তবে এই নতুন নিয়ম নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা কিছুটা ক্ষুব্দ। তাদেরই একজন বলেন একবিংশ শতাব্দীতে এসে এরকম নিয়ম সত্যিই আজব। একজন প্রাপ্তবয়স্ক হিসেবে আমরা কখনোই প্রকাশ্যে এসব কাজ করার সাহস করতে পারি না। আর আমি কখনো দেখিনি যে প্রেমিক প্রেমিকারা একে অপরকে খাইয়ে দেয়। সুতরাং এটি একটি অপ্রোয়জনীয় নিষেধাজ্ঞা।

এদিকে চীনের সামাজিক মাধ্যমগুলো বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এই নতুন আইনকে সাধুবাদ জানিয়েছে। তারা বলেন এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সিঙ্গেল ছাত্রছাত্রীদের জন্য উপহার স্বরূপ। ক্যান্টিনের একজন কর্মী বলেন এই নতুন নিয়মে আমি সত্যিই আনন্দিত। এটা ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতে সভ্য হয়ে গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।






মন্তব্য চালু নেই