মেইন ম্যেনু

‘এক দিনের একটি ঘোষণায় বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি’

কোনো এক দিনের একটি ঘোষণার জন্য বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে দলমত নির্বিশেষে দেশের সব মানুষ স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশ নিয়েছিল। এ ক্ষেত্রে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঘোষণাই স্বাধীনতার ঘোষণা হিসেবে কৃষক-শ্রমিকসহ সাধারণ জনতাকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে অনুপ্রাণিত করেছিল।’

বৃস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর বিসিআইসি মিলনায়তনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে শিল্প মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তৃতাকালে সংস্কৃতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধাদের ৯৫ ভাগ ছিলেন গ্রামের সাধারণ স্বল্পশিক্ষিত কিংবা নিরক্ষর মানুষ। কালুরঘাট বেতার কেন্দ্রের ঘোষণা শুনে তাদের কেউ মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেননি। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের প্রতি অগাধ আস্থা ও আনুগত্যের কারণে তারা ৭ মার্চের পর থেকে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন। বঙ্গবন্ধুর সাহসী কণ্ঠস্বর তাদেরকে যুদ্ধক্ষেত্রে প্রেরণা ও সাহস যুগিয়েছে।’

সংস্কৃতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘স্বাধীনতার পর থেকে অদ্যাবধি বাংলাদেশের অর্থনীতি অনেক দূর এগিয়ে গেছে। গ্রামীণ সমাজ কাঠামোতে অর্থনৈতিক উন্নয়নের রূপান্তর ঘটেছে। উত্তরবঙ্গ থেকে এখন মঙ্গার অস্তিত্ব বিলীন হয়ে গেছে। তিনি টেকসই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দক্ষ, সুশিক্ষিত ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেন।’

সভাপতির বক্তব্যে শিল্পসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির পেছনে এ দেশের বিশাল জনগোষ্ঠির গুরুত্বপূর্ণ অবদান আছে। এ বিশাল জনগোষ্ঠির কারণেই মাত্র নয় মাসে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছিল। পৃথিবীর কোনো দেশে এত লোক মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ ও আত্মাহুতি দেয়নি।’ তিনি মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিভক্তি সৃষ্টি না করে শিল্পসমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে সবাইকে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

শিল্পসচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাস, বিসিআইসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইকবাল ও বিসিক চেয়ারম্যান হযরত আলী বক্তব্য রাখেন।






মন্তব্য চালু নেই