মেইন ম্যেনু

এক নারী বিচারপ্রার্থীকে প্রকাশ্যে বিএনপিপন্থী আইনজীবীর জুতাপেটা

নারায়ণগঞ্জের আদালতপাড়ায় এক নারী বিচারপ্রার্থীকে প্রকাশ্যে বেদম মারধর করেছেন বিএনপি ও জামায়াতপন্থী দুই আইনজীবী। তারা হলেন- নারায়ণগঞ্জ নগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন ও জামায়াতপন্থী সংগঠন ল’ ইয়ার্স কাউন্সিলের জেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাইনুদ্দীন আহম্মেদ।

বৃহস্পতিবার নির্যাতনের শিকার ওই নারী নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ কাদিরারটেক ইউসুফগঞ্জ এলাকার ইদ্রিস আলীর মেয়ে নাজমা বেগম তার স্বামী এএম আব্দুস সাত্তারের বিরুদ্ধে মামলায় বুধবার নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দিতে আসেন। সেই মামলায় আসামির জামিনের বিষয়ে নাজমা বেগমের আইনজীবী আপত্তি জানায়। আদালতে আসামির জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করেন।

শুনানি শেষে আদালতের বারান্দায় বিবাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, অ্যাডভোকেট মাইনুদ্দীন আহম্মেদ ও নারীর স্বামী এএম আব্দুস সাত্তার নাজমাকে কিল ঘুষি ও মাথায় জুতা দিয়ে আঘাত করেন বলেন অভিযোগ করা হয়। তাদের নির্যাতনে নাজমা মাটিতে লুটিয়ে পরে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে আদালতের লোকজন নারীকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করায়। হাসপাতালে ৬ ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরে আসে তার।

অভিযোগ স্বীকার করে অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন জানান, তার (নাজমা বেগম) স্বামীকে যৌতুক মামলায় জামিন করিয়েছি আমি। কোর্ট থেকে তিনি বের হয়ে আমাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগাল করে। পরে আমি তাকে ক্ষোভে থাপ্পর দেই। এমনকি নাজমা বেগম খানপুর হাসপাতাল থেকে সার্টিফিকেট এনেছেন সেটিকে ভুয়া বলে দাবি করছেন তিনি। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। শুনেছি এই ঘটনায় নাজমা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আমরা মামলার কপি হাতে পেলেই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।






মন্তব্য চালু নেই