মেইন ম্যেনু

এক ফোন কলেই অধিনায়কত্ব হারালেন স্যামি!

ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব হারালেন ড্যারেন স্যামি, তাও মাত্র একটি মাত্র ফোন কলে। স্যামি এমন একজন বোলার যিনি অনেকটাই ইকোনোমিকাল কিন্তু ব্যাটসম্যানদের মনে তেমন ভয় তৈরি করতে পারেন না। এমন একজন ব্যাটসম্যান যিনি ভালো শট খেলতে পারেন কিন্তু ধারাবাহিক নন। কিন্তু এমন একজন অধিনায়ক যিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন সেরাদের তালিকায়। কিন্তু তার দাবি, অধিনায়ক হিসেবে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেছে স্যামি। সেখানেই স্যামি জানান, ৩০ সেকেন্ড কথা বলে প্রধান নির্বাচক জানিয়েছেন, তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ভিডিওতে তিনি বলেন, ‘গতকাল আমি একটা ফোন কল পেয়েছি। সম্ভবত সেটা ৩০ সেকেন্ড ছিল। ফোনে নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান আমাকে জানালেন তারা টি-টোয়েন্টি দলের জন্য নতুন অধিনায়ক খুঁজছেন আমি সেখানে যোগ্য না। আমি আর অধিনায়ক নেই এবং আমার পারফরম্যান্স দলের অর্জনের অংশ হবে না।’

ভিডিওতে আধা শোয়া হয়ে হাসি মুখে স্যামি বলেন, ‘ছয় বছর আগে আমাকে একটা কঠিন কাজ দিয়ে এই অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছিল।যেটা আমার ক্যারিয়ারের সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। এমন একটা দায়িত্ব ছিল সেটা আমাকে অনেক চিন্তায় ফেলেছিল। কিন্তু আমি সেটা মাথায় নিয়েছিলাম। আমি এই চ্যালেঞ্জে নিজেকে জড়িয়েছি, কঠিনতার সাথে নিজেকে জড়িয়েছি। আমি ক্রিকেট মাঠকে আমার অফিস বানিয়ে ফেলেছিলাম। আমি প্রতিদিন কাজ করেছি।’

২০১২ ও ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে ছিলেন স্যামি। দুইবারই ওয়েস্ট ইন্ডিজ শিরোপা জিতেছে। দুইবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জেতা একমাত্র দল ক্যারিয়ানরা। বর্তমানে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়েও দলটি সবার উপরে রয়েছে।

অনেকদিন থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড (ডব্লিউআইসিবি) সাথে দ্বন্দ যাচ্ছিল স্যামির সাথে। তারই ধারাবাহিকতায়ই তাকে আধিনায়কের পদ থেকে সরানো হলো, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই