মেইন ম্যেনু

‘এক রাতের সহবাস মানেই ব্যভিচার নয়’

এক রাতের সহবাস মানেই ব্যভিচার নয়। বিশেষত সেই যৌনমিলন যদি মুহূর্তের ভুলে হয়ে গিয়ে থাকে, তা হলে কখনওই তাকে পরকীয়া বলা যাবে না। বরং ‘অনিচ্ছাকৃত’ সেই ‘দুর্ঘটনা’ যদি একাধিক বারও হয়, তবুও তাকে ‘সাময়িক বিচ্যুতি’ হিসেবেই গণ্য করা উচিত। ব্যভিচার ও বিবাহবিচ্ছেদ সংক্রান্ত একটি মামলায় বুধবার এমনটাই জানিয়েছে ভারতের গুজরাটের হাইকোর্ট।

কী সেই মামলা? সূত্রের খবর, গুজরাতের পাটান জেলার এক মহিলা সম্প্রতি তাঁর স্বামীর কাছে খোরপোষ দাবি করে নিম্ন আদালতের দ্বারস্থ হন। মহিলা জানান, তাঁর স্বামী তাঁকে বাড়িতে থাকতে দেন না। এমনকী তাঁর নাবালক সন্তানেরও দেখভাল করেন না। কিন্তু কেন!

কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে মহিলা নিজেই তাঁর দীর্ঘদিনের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ও পরপুরুষের সঙ্গে অবাধ যৌনতার কথা স্বীকার করেন। এবং তার পরেই নিম্ন আদালত জানায়, স্ত্রী যে হেতু ব্যভিচারে লিপ্ত, তাই স্বামী তাঁর দেখভাল না-ও করতে পারেন।

তবে নাবালক সন্তানের দায়িত্ব বাবাকেই নিতে হবে বলে জানায় দায়রা আদালত।

একই সঙ্গে ওই মহিলার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক নিয়েও মতামত দেয় নিম্ন আদালত। অভিযোগকারিণীর দিকেই আঙুল তুলে সে বার আদালতের পর্যবেক্ষণ ছিল- ‘‘অন্য পুরুষের সঙ্গে দীর্ঘদিনের এই সম্পর্ক কোনও ভাবেই মুহূর্তের ভুল কিংবা সাময়িক পদস্খলন নয়। এ ক্ষেত্রে যা ঘটেছে, সবটাই পূর্বপরিকল্পিত এবং স্বেচ্ছায়। তা-ই এটা ব্যভিচার ছাড়া কিছু নয়।”

কিন্তু এই যৌনমিলন যদি পরিকল্পিত ভাবে না হয়? সে ক্ষেত্রে নিম্ন আদালতের বক্তব্য ছিল-একে ব্যভিচার নয়, মুহূর্তের ভুল বলেই গণ্য করা উচিত। এই রায় ও পর্যবেক্ষণকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েই হাইকোর্টে আসেন ওই মহিলা। আর হাইকোর্টেরও সেই এক মত ‘দুর্বল’ মুহূর্তের সহবাস ব্যভিচার নয়। অনলাইন






মন্তব্য চালু নেই