মেইন ম্যেনু

এক লাইনের রচনা লিখে তাক লাগিয়ে দিল সেই মেয়েটি, জেনে নিন কী লিখেছিল…

যিনি পলিটিক্যাল সায়েন্স নামক বিষয় সম্পর্কে অবগত নন, তিনিই কলা বিভাগে সব থেকে বেশি নম্বর পেয়েছেন বিহারে। আপাতত বিষয়টি গোটা দেশের মানুষ জেনে গিয়েছেন। রুবি রাই, সৌরভ শ্রেষ্ঠ-সহ ৩ টপারকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। গত শনিবার রি-টেস্টে রুবির উত্তরপত্র দেখে রীতিমতো অবাক হয়েছেন পরীক্ষকরা। তারা সরাসরি প্রশ্ন তুলেছেন, ‘এই মেয়ে টপার হয় কী করে?’

রি-টেস্টে রুবিকে প্রশ্ন করা হয়, ‘কবি তুলসিদাস সম্পর্কে যা জান লেখ’। তাতে রুবি লেখেন, ‘তুলসিদাস জি, প্রণাম’। এই একটিমাত্র লাইন তিনি লিখতে পেরেছেন। এমনই বহু প্রশ্নের কোনও উত্তরই তিনি দিতে পারেননি। অথচ বোর্ডের পরীক্ষার সময় রুবি যে উত্তরপত্র জমা দেন, সেগুলি খুবই ভালো মানের ছিল বলে জানিয়েছে বিহার স্কুল এক্সামিনেশন বোর্ড।

এর আগেও ৩ এবং ১৭ জুন রিটেস্টের জন্য ডাকা হয় রুবিকে। তবে শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপস্থিত হননি তিনি। শেষ পর্যন্ত ২৫ জুন বোর্ডের দপ্তরে গিয়ে পরীক্ষা দেন তিনি। তার আগেই পাটনার একটি আদালত তাঁর বিরুদ্ধে অজামিনযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। পরীক্ষার খাতা দেখার পর বোর্ড চেয়ারম্যান আনন্দ কিশোর বলেন, ‘পরীক্ষকদের প্যানেল রুবির খাতা দেখার পর জানিয়েছেন রুবি পরীক্ষায় এত নম্বর পাওয়ার যোগ্যই নন। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে তাঁর রেজাল্ট বাতিল করা হচ্ছে।’

পরীক্ষা দেওয়ার পরই তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়ার পর নিজের মুখ ঢাকতেও অস্বীকার করেন রুবি। পরে পুলিশের চাপে একটি স্কার্ফ দিয়ে তার মুখে ঢেকে দেওয়া হয়। এর আগে অবশ্য এই কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগে আরও ২০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। -এসময়






মন্তব্য চালু নেই