মেইন ম্যেনু

এক সময় সাপের পা ছিল, কিন্তু যে কারণে পা হারিয়েছে সাপ

সাপের থাকে না, এটা আমাদের সকলেরই জানা কিংবা দেখা। কিন্তু এ ব্যাপারে বিজ্ঞানীদের মতামত ভিন্ন। বিজ্ঞানীদের মতে, একটা সময় সাপের ঠিকই পা ছিল তবে তা বিলুপ্ত হয়েছে।

কিন্তু কী কারণে সাপ তার পা হারিয়েছে তা নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে মতভেদ রয়েছে। বিজ্ঞানীদের একটি অংশের মতে, মাটির গর্তে বসবাসের জন্যই বিবর্তনের ধারায় সাপের পা বিলুপ্ত হয়েছে। আরেকদল গবেষকদের মতে, সাপ আসলে পানির সরীসৃপ, পানিতে বসবাস করার সুবিধার্থেই বিবর্তনের কারণে বিলুপ্ত হয়েছে সাপের পা।

তবে প্রায় ৯০ মিলিয়ন বছরের পুরোনো সাপের ফসিল নিয়ে সাম্প্রতিক একটি গবেষণার ফলাফল সমর্থন করছে, সাপের পা হারানোর জন্য মাটির গর্তে বসবাসের সুবিধাটিকেই।

সায়েন্স ডেইলির খবরে বলা হয়েছে, এখনকার সাপের কঙ্কাল আর প্রায় ৯০ মিলিয়ন বছরের আগের সাপের কঙ্কালের তুলনামূলক সিটিস্ক্যান পরীক্ষায় এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানান, সাপের পা বিলুপ্ত হয়েছে মাটির গর্তের ভেতরে খাবারের সন্ধানের সুবিধার্তেই।

প্রমাণ হিসেবে পুরোনো ফসিল, বর্তমান সাপের কঙ্কাল ও টিকটিকির কঙ্কালের অন্তঃকর্ণের থ্রিডি ভার্চুয়াল মডেল তৈরি করেন এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গবেষক ইঙ্গি ই এবং আমেরিকান মিউজিয়াম অব ন্যাচারাল হিস্টোরি’র গবেষক মার্ক নোরেল।

সরীসৃপরা এই অন্তঃকর্ণের সাহায্যেই স্বল্প কম্পাঙ্ক মাপতে পারে এবং এর মাধ্যমে কোথায় কোন প্রাণী আছে তার সন্ধান পেয়ে যায় তারা। ফসিল ও এখনকার সরীসৃপদের অন্তঃকর্ণের গঠনে পার্থক্য দেখতে পান গবেষকরা। সাপের অন্তঃকর্ণ যেভাবে বিবর্তিত হয়েছে তাতে মাটির নীচে গর্তে বসবাসকারী প্রাণীর ইঙ্গিতই মিলছে। এই তুলনা থেকে গবেষকরা জানান, সাপ পা হারিয়েছে পানিতে বসবাসের জন্য নয় বরং মাটির গর্তে বসবাসের সুবিধার্থে। গবেষণাটি সায়েন্স অ্যাডভান্স পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই