মেইন ম্যেনু

এটিএম জালিয়াতি: ২৪ গ্রাহকের টাকা ফিরিয়ে দিল ইবিএল

এটিএম বুথে জালিয়াতির ঘটনায় ২৪ জন গ্রাহকের চুরি যাওয়া ১৭ লাখ ৫৩ হাজার টাকা ফেরত দিল ইস্টার্ন ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর সচিবালয়ের কনফারেন্স হলে ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানার উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে এ অর্থ ফেরত দেয়া হয়।

ইস্টার্ন ব্যাংকের ২৪ জন গ্রাহকের ১৭ লাখ ৫৩ হাজার টাকা জালিয়াতির মাধ্যমে তুলে নেয় দুর্বৃত্তরা। অনুষ্ঠানে পাঁচজন গ্রাহকের হাতে এ চেক হস্তান্তর করা হয়। অন্যান্য গ্রাহকের অর্থ তাদের অ্যাকাউন্টরে জমা করে দেয়া হয়েছে বলে জানায় ইবিএল কর্তৃপক্ষ।

অনুষ্ঠানে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহক মাহবুবা আক্তার বলেন, ‘আমরা ব্যাংকে আমানত রাখি। জালিয়াতি করে কার্ড দিয়ে টাকা তুলে নেবে এটা তো ঠিক নয়। ব্যাংকের আরো সতর্ক হওয়া উচিৎ।’ খোয়া যাওয়া টাকা ফিরে পেয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানা জানান, এতদিন ব্যাংক বুথ সফটওয়্যারের ফিজিকাল সিকিউরিটি ভেঙে এ জালিয়াতি হয়েছে। এরপরও লজিক্যাল সিকিউরিটি ভাঙতে পারে স্বীকার করে নিয়ে তিনি বলেন, ‘এজন্য আমাদের আরও সচেতন হতে হবে। বাংলাদেশ ব্যংকের প্রজ্ঞাপন অনুকূলে ১ মাসের মধ্যেই এন্ট্রি ডিভাইস বসাতে হবে। ১৪ তারিখের এ নীতিমালা অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে হবে। এর জন্য নির্ধারিত সময়ের বাইরে আর মেয়াদ বাড়ানো হবে না। এর পাশাপাশি গ্রাহকদের সচেতনতা বাড়াতে হবে।’

ইস্টার্ন ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান ও রশিদ বলেন, ‘এটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। এরকম আর যেন না ঘটে সেদিকই লক্ষ্য রাখবে ব্যাংকটি।’

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা, প্রেমেন্ট সিস্টেম ডিপাটমেন্টের মহাব্যবস্থাপক মো. ইস্কান্দার সহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য, ১২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ইষ্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) এক গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য ব্যাংকের এটিএম ব্যবহার করে কৌশলে টাকা তুলে নেয় দুর্বৃত্তরা। এসময় ২০ লাখ ১৬ হাজার টাকা তুলে নেয়। এর মধ্যে ইস্টার্ন ব্যাংকের ১৭ লাখ ৫৩ হাজার টাকা।






মন্তব্য চালু নেই