মেইন ম্যেনু

এপ্রিলে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় সামিকে : দাবি পরিবারের

চট্টগ্রামে জঙ্গি আস্তানায় গ্রেফতার হওয়া পাঁচ জনের মধ্যে একজন শেখ ইবতিসাম আহমেদ সামি (২৩)। গত এপ্রিলে রাজশাহী নগরীর একটি ছাত্রাবাস থেকে তাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে তুলে নেয়া হয়েছিল বলে দাবি করছে তার পরিবার।

ইবতিসাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইংরেজি তৃতীয় বর্ষের ছাত্র এবং রংপুর নগরীর ধাপ ইঞ্জিনিয়ারপাড়া এলাকার পেট্রলপাম্প ব্যবসায়ী শেখ ইফতেখার আহমেদ এনামের ছেলে।

গত বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের কর্নেলহাটে র্যাবের অভিযানে গ্রেফতারকৃতদের ছবি টেলিভিশনে দেখে নিজের ছেলে ইবতিসামকে শনাক্ত করেন বাবা এনাম।

ইফতেখার আহমেদ এনাম সাংবাদিকদের বলেন, চলতি বছরের ২৯ এপ্রিল ভোরে সাদা পোশাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে সামিকে রাজশাহীর মোন্নাফের মোড় এলাকার নিলাভা ছাত্রাবাস থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরদিন সকালে খবর পেয়ে রাজশাহী ছুটে যায়। কোথাও ছেলের সন্ধান না পেয়ে ওই দিনই রাজশাহী নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি নম্বর ১৬১৬) করি। এ নিয়ে বোয়ালিয়া থানায় একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও পুলিশ তার কোনো সন্ধান দিতে পারেনি।

তিনি আরো জানান, তার ছেলে কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিল না। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে একদল লোক তার ছেলেকে ঘুমন্ত অবস্থায় তুলে নিয়ে যায়। ছেলে নিখোঁজ হওয়ার পর দীর্ঘ ৮ মাসে তিনি রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তার সন্ধান করেছেন।

বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদৎ হোসেন জানান, ইবতিসামের সন্ধান অব্যাহত রাখার মধ্যেই বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে জঙ্গি আস্তানায় আটক পাঁচজনের মধ্যে তার ছবি টেলিভিশনে দেখতে পাওয়া যায়।






মন্তব্য চালু নেই