মেইন ম্যেনু

এবারের বিজয় দিবসে স্মৃতিসৌধে যাবেন খালেদা

মহান বিজয় দিবসে জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

মঙ্গলবার দুপুরে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ নিয়ে বিএনপির যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে যৌথ বক্তব্য দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের মুখপাত্রের দায়িত্বে থাকা আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস পালনের জন্য বিএনপি কর্মসুচি গ্রহণ করেছে।’

তিনি বলেন, ‘বাধাহীনভাবে এ কর্মসুচি পালন করতে পারবো বলে আশা করি না। কারণ দেশে ডেমোক্রেটিক স্পেস নেই। প্রতিদিন নেতাকর্মীরা গ্রেপ্তার হচ্ছেন। পৌর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে এ পর্যন্ত বিএনপির পাঁচ হাজার নেতাকর্মী আটক হয়েছে।’

এসময় রিপন ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের অনুমতিক্রমে বিজয় দিবসের কর্মসুচি ঘোষণা করেন।

রিপন জানান, ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন। ওইদিন বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের দিন সকালে চেয়ারপারসন দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানাবেন। একইদিন বিকেলে নয়াপল্টন থেকে বিজয় র‌্যালি বের করবে দলটি।

১৮ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউটে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউটে আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়েছে।

রিপন বলেন, ‘বিজয় দিবস উপলক্ষে দলীয় কার্যালয় এবং চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হবে।’

১৫দিন ব্যাপী বিজয় দিবসের কর্মসুচি চলবে জানিয়ে রিপন বলেন, ‘বিস্তারিত কর্মসুচি পরে জানানো হবে।’

প্রসঙ্গত, গতবছর বিজয় দিবস ও জাতীয় শহীদ দিবসে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তাদের আন্দোলনের কারণে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাননি। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনা হয়।






মন্তব্য চালু নেই