মেইন ম্যেনু

এবার ক্লাসে বোরকা পরে ঢুকে ছাত্রীদের সঙ্গে ইভটিজিং

কৌশল করেও রেহাই পেলেন না এক যুবক। ক্লাসে বোরকা পরে ঢুকে ছাত্রীদের হাতেই ধরা খেলেন তিনি। এ ঘটনা ঘটে রাজধানীর হাজারীবাগের সালেহা স্কুল অ্যান্ড কলেজে।

বোরকা পরে ছাত্রীদের ক্লাসে বসে ইভটিজিং করার অভিযোগে বখাটে যুবক রাসেল আক্তারকে (১৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বাড়ি কামরাঙ্গীরচর থানার ১০০৯ নম্বর রসুলপুরে।

জানা গেছে, আজ শনিবার সকালে হাজারীবাগের সালেহা স্কুল অ্যান্ড কলেজে বোরকা পরে এক যুবক ছাত্রীদের ক্লাসে প্রবেশ করেন। এরপর স্কুলের শিক্ষক ক্লাস নিয়ে বের হন। এসময় বোরকা পরা এবং তার পায়ের স্যান্ডেল দেখে এক ছাত্রীর সন্দেহ হয়। পরে তিনি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে গিয়ে বিষয়টি বলেন।

অভিযোগ পেয়ে প্রধান শিক্ষকসহ স্কুলের লোকজন ক্লাসে গিয়ে বোরকা পরা অবস্থায় ওই যুবককে আটক করে হাজারীবাগ থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে হাজারীবাগ থানার সহকারী পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ রানা তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

সহকারী পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ রানা বলেন, ছেলেটি বখাটে ও সন্ত্রাসী। জিজ্ঞাসাবাদে সে জানিয়েছে, স্কুলের এক মেয়েকে সে পচ্ছন্দ করে। এজন্যই সে স্কুলে প্রবেশ করেছিল। সে ইভটিজিং করতেই স্কুলে প্রবেশ করেছিল। স্কুল কর্তৃপক্ষ তাকে আটকের পর আমাদের কাছে সোপর্দ করে।

সালেহা স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল নজরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ছেলেটি এই স্কুল থেকে গত বছরের আগের বছর পাস করে গেছে। সে পলিটেকনিকে পড়ে। স্কুলের এক ছাত্রীর সাথে তার সম্পর্ক আছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর আলীমুজ্জামান বলেন, বখাটে ছেলেটি স্কুলের ছাত্রীদের সাথে ইভটিজিং করার জন্যই প্রবেশ করেছিল। তাকে আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই