মেইন ম্যেনু

এবার থেকে প্রাণ বাঁচাবে ফেসবুক

বর্তমান সময়ে মানুষের দৈনন্দিন সঙ্গি হয়ে উঠেছে ফেসবুক। আবার এই ফেসবুকেই অনেকে হচ্ছেন নানাভাবে হয়রানি ও প্রতারণার শিকার। তবে এই ফেসবুকও যে প্রাণ বাঁচাতে পারে তা কি কেউ জানেন?

বিষয়টা ঠিক অন্য রকম। অর্থাৎ ‘সুইসাইড প্রিভেনশন টুল’ নামে একটি বিশেষ সুবিধা রয়েছে ফেসবুকে। আমেরিকা এবং অস্ট্রেলিয়ায় পরীক্ষামূলক ব্যবহারে ভাল সাড়া পাওয়ায়, এবার ব্রিটেনেও এই সুবিধা চালু করেছে ফেসবুক। আত্মহত্যাপ্রবণ ব্যক্তিদের নিয়ে কাজ করা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এই পরিষেবা দিচ্ছে ফেসবুক। কিন্তু ফেসবুকের এই আত্মহত্যা প্রতিরোধকারী ‘টুল’ কী ভাবে কাজ করে?

যদি কোনও ফেসবুক ব্যবহারকারীর মনে হয় যে ফেসবুকে থাকা তার কোনও বন্ধু আত্মহত্যাপ্রবণ, তাহলে ‘ফেসবুক হেল্প সেন্টার’-এর একটি ফর্ম পুরণ করে তিনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানাতে পারবেন। এর পরে আত্মহত্যাপ্রবণ ওই ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট পরীক্ষা করে দেখবে ফেসবুক সেফটি টিম। তাদের যদি মনে হয় ব্যক্তির যে কোনও মুহূর্তে আত্মহত্যা করার সম্ভাবনা রয়েছে, সেই রকম আপতকালীন পরিস্থিতিতে ফেসবুক-এর তরফে স্থানীয় থানাতেও বিষয়টি জানানো হবে। আর যারা অবসাদে ভুগছেন, কী ভাবে অবসাদ কাটিয়ে ওঠা যায়, ফেসবুকের থেকে সেই পরামর্শও দেওয়া হবে।

তার কোনও বন্ধুই যে বিষয়টি তাদের নজরে এনেছে, আত্মহত্যাপ্রবণ বা অবসাদে ভোগা ব্যক্তিকে ফেসবুকের তরফে সেটাও জানানো হবে। ২০১১ থেকেই এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে কাজ করছে ফেসবুক।






মন্তব্য চালু নেই