মেইন ম্যেনু

এবার বিয়ে করলেই বিপুল আয়ের পথ!

এত দিন ধারণা ছিল, বিয়ে মানে শুধুই খরচ। এ বার বিয়ে থেকেই রোজগারের রাস্তা খুলে গেল ভারতে। রোজগার এতটাই করতে পারেন যে, আপনার বিয়ের খরচের পুরোটাই উঠে আসতে পারে।

এই বাজারে জমিয়ে বিয়ে করতে গেলে খরচের বহর যা দাঁড়ায়, তাতে অনেকেরই নাভিশ্বাস উঠে যায়। যাঁরা শেষমেশ সকলকে ডেকে, পাতপেড়ে এবং পেটপুরে খাইয়ে জাঁকিয়ে বিয়েটা করতে পারেন, তাঁরা সকলেই একবাক্যে স্বীকার করতে বাধ্য হবেন, ‘‘অনেকগুলো টাকা গলে গেল।’’ যুগ, যুগ ধরে এই খরচ সামলেই সকলে বিয়ে করে আসছেন।

এইবারে সম্ভবত বিয়ের খরচ নিয়ে ধারণা বদলে যাবে। নিমন্ত্রণ করে রোজগারের রাস্তা খুলে যাচ্ছে ভারতে। একটি স্টার্টআপ বিজনেস সেই রাস্তা দেখাতে শুরু করেছে। হিসেব সহজ। বিদেশিদের বিয়েতে নিমন্ত্রণ করুন। তাঁরা নিজেদের গাঁটের কড়ি ফেলে আপনার বিয়ে খেয়ে যাবে। এটা তাঁদের পর্যটনেরই অংশ।

‘জয়েনমাইওয়েডিং.কম’ ওয়েবসাইটে এই নয়া ব্যবসা চালু হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা ওরসি পারকান্যি ভারতে বেড়াতে এসেছিলেন। একটি বিয়েবা়ড়ি দেখে তাঁর সেখানে যাওয়ার ইচ্ছে হয়। কিন্তু নিমন্ত্রণ না-থাকায় যেতে পারেননি। এর পরে তিনি খোঁজখবর করে জানতে পারেন, তাঁর মতো অনেকেরই এই অবস্থা হয়েছে। বহু বিদেশিই ভারতের বিয়ে সম্পর্কে নানা কথা শুনেছেন, নানা ছবি দেখেছেন। কিন্তু সামনে থেকে দেখার সৌভাগ্য তাঁদের কারও হয়নি। অথচ, ইচ্ছে রয়েছে পুরোদস্তুর। এখান থেকেই ব্যবসার আইডিয়া আসে ওরসির মাথায়।

একটি ওয়েবসাইট চালু করেন তিনি। বিয়ে আসন্ন, এমন পাত্র বা পাত্রী সেখানে বিয়ে রেজিস্টার করাতে পারেন। সাইটে গিয়ে বিদেশিদের বেছে নিতে হবে, তাঁরা রেজিস্টার করা কোন বিয়েতে যেতে চান। সেইমতো দাম চুকিয়ে দিতে হবে অগ্রিম। কুড়ি হাজার টাকা থেকে শুরু বুকিং। এই প্যাকেজে বিয়ের সব অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া থেকে আতিথেয়তা, খাবার, থাকা— সব থাকছে। পাত্র বা পাত্রীপক্ষকে ওয়েবসাইটের তরফেই দিয়ে দেওয়া হবে নির্ধারিত অর্থ। অর্থাৎ, বিদেশিদের নেমন্তন্ন করে নিজের বিয়ে থেকে আয় করার সহজ উপায়। আপাতত মুম্বই, দিল্লি, জয়পুর, চেন্নাই এবং বেঙ্গালুরুতে এই কাজ শুরু হয়েছে। তবে সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, খুব দ্রুত কলকাতা-সহ দেশের সব বড় শহরে ব্যবসা ছড়ানো হবে।-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই