মেইন ম্যেনু

এবার মেক্সিকান ফার্স্টলেডিতে মজেছেন ওলাঁদ!

ফরাসি প্রেসিডেন্টদের মধ্যে নারীপ্রীতি মনে হয় একটু বেশিই! আর নারী যদি হয় মাথা নষ্ট করা সুন্দরী তাহলে তো কথায় নেই। ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ থেকে শুরু তার দুই পূর্বসূরি নিকোলাস সারকোজি ও জ্যাক শিরাকের মধ্যে ‘নারীভক্তি’র বিষয়টি লক্ষ করা গেছে।

প্রেসিডেন্ট থাকাকালে সারকোজি তো ‘হট মডেল’ কার্লা ব্রুনিকে তো নিজের পার্টনারই করে নিলেন। জ্যাক শিরাকের বিরুদ্ধেও নানা যৌন ‘রোমাঞ্চের’ খবরও বেশ আলোচিত।

তবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ওলাঁদ হয়তো নারীদের প্রতি একটু বেশিই ‘দিলখোলা’। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার কয়েক বছর পর দীর্ঘদিনের বান্ধবী ভ্যালেরি ত্রিবেলার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে নতুন করে চুটিয়ে প্রেম শুরু করেছেন তিনি। নতুন পাত্রী মডেল জুলি গায়েত।

নারীপ্রীতি যার ডিএনএ-তে সেই ওলাঁদ কি সুন্দরী দেখলে নিজেকে সংবরণ করতে পারেন? সেটা আরেকবার প্রমাণিত হলো ঐতিহাসিক বাস্তিল দিবসের (ফ্রান্সের জাতীয় দিবস) অনুষ্ঠানে। বাস্তিল দিবসে যোগ দিতে প্যারিস এসেছিলেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট পেনা নিয়েতো। সঙ্গে নিয়ে এনেছিলেন মেক্সিকোর সুন্দরী ও আবেদনময়ী ফার্স্টলেডি অ্যাঞ্জেলিকা রিভেরাকে। ওলাঁদ অ্যাঞ্জেলিকার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে যেন ভুলেই গেলেন প্রেসিডেন্ট পেনা নিয়েতোকে! ২২৬তম বাস্তিল দিবসের সব তোড়জোড় ও আয়োজন যেন ওলাঁদের কাছে মিছে হয়ে গেল অ্যাঞ্জেলিকার রূপের জাদুতে।

অনুষ্ঠানস্থলে আসার পর থেকে মেক্সিকান প্রেসিডেন্টকে পাত্তাই দেননি। তার সব কৌতুহলের জায়গা অ্যাঞ্জেলিকা। একবার নিয়েতোর সঙ্গে হাত মেলালেও বাকি সময়টা দেন অ্যাঞ্জেলিকাকে। অতিথিকে অভ্যর্থনার জন্য ওলাঁদ অ্যাঞ্জেলিকাকে আলিঙ্গণ, স্পর্শ কোনো কিছু বাদ রাখেননি। এর আগে বিমান থেকে নামতেই রিভেরাকে জড়িয়ে ধরেন তিনি। ছবিতে ফরাসি প্রেসিডেন্টের আচরণে কিছুটা বিব্রত হতে দেখা যায় মেক্সিকোর প্রেসিডেন্টকেও।

এমনিতেই মেক্সিকোর ফার্স্টলেডি যে দেশেই যান সেই দেশের রাষ্ট্র নেতারাই মুগ্ধ হন তার রূপে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টও এর ব্যতিক্রম ছিল না। তবে এসব রাষ্ট্রীয় অতিথিকে সম্মান জানানোর অংশ হিসেবে দেখা হচ্ছে। আর সেটাই করা ভালো। তা না হলে ক্লিওপেট্রাকে পেতে মিশরের মার্ক অ্যান্টনি ও ইতালির জুলিয়াস সিজারের মধ্যে যে যুদ্ধ হয়েছিল তা হয়তো বর্তমানে ফিরে আসবে!

২০১০ সালে মেক্সিকোর জনপ্রিয় গায়িকা অ্যাঞ্জেলিকা রিভেরাকে বিয়ে করেন পেনা নিয়েতো। ২০১২ সালে সেদেশের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন তিনি।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই