মেইন ম্যেনু

এবার শাহ আলী থানার ওসি প্রত্যাহার

রাজধানীর মিরপুরের গুদারঘাট এলাকায় চাঁদার টাকা না পেয়ে চা-দোকানি বাবুল মাতুব্বরকে (৫০) আগুনে পুড়ে হত্যার ঘটনায় শাহ আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম শাহীন মণ্ডলকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার বিকালে তাকে প্রত্যাহার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারের উপকমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সর্দার।

এর আগে এই ঘটনায় শাহ আলী থানার পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়। এছাড়া এ ঘটনা তদন্তে পুলিশের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ডিএমপির ডিসি (ডিসিপ্লিন) টুটুল চক্রবর্তীকে নিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে এক সদস্য বিশিষ্ট একটি এবং মিরপুর বিভাগ থেকে দুই কর্মকর্তাকে নিয়ে অপর কমিটি গঠিত হয়েছে। এ কমিটির সদস্যরা হলেন মিরপুর জোনের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিনার (এডিসি, ক্রাইম) মাসুদ আহমেদ ও সহকারী কমিশনার (এসি) মাহবুব হোসন।

বাবুল মাতব্বরকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় তার মেয়ে রোকসানা আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। মামলায় পুলিশের সোর্সসহ সাতজনকে আসামি করা হয়েছে।

পুলিশের ছোড়া তেলের চুলার বিস্ফোরণে দগ্ধ বাবুল মাতব্বর বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া একটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বাবুল মাতব্বরের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, বাবুল বুধবার রাতে গুদারাঘাট এলাকায় ফুটপাতে বসে চা বিক্রি করছিলেন। রাত সাড়ে নয়টার দিকে তিন-চারজন পুলিশ এসে ফুটপাতে বসার জন্য তার কাছে টাকা চান। টাকা দিতে না পারায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তেলের চুলায় (স্টোভে) আঘাত করেন। এ সময় স্টোভ বিস্ফোরিত হলে বাবুলের শরীরে আগুন ধরে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা বাবুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নিয়ে যায়।






মন্তব্য চালু নেই