মেইন ম্যেনু

এবার সুদের টাকা না পেয়ে চা-দোকানিকে পেটাল পুলিশ

শাহ আলীতে চুলার আগুনে চা-দোকানি বাবুল মাতব্বরকে দগ্ধ করার ঘটনার রেশ না কাটতেই এবার সাভারে এক চা-দোকানিকে পিটিয়ে আহত করেছেন পুলিশের একজন কনস্টেবল। সুদের টাকা সময়মতো পরিশোধ না করায় বেলাল হোসেন নামের ওই চা-বিক্রেতাকে পিটিয়ে আহত করেন ডিএমপির পুলিশ কনস্টেবল মিজানুর রহমান।

বুধবার সকালে সাভারের গেন্ডা ছাপড়া মসজিদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত চা-বিক্রেতাকে কাছের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

চা-বিক্রেতা বেলাল হোসেনের বাড়ি দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ থানার মুনিপুর গ্রামে। তিনি ও তার স্ত্রী গেন্ডা এলাকার ব্যবসায়ী ইরন মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে একটি দোকানে চা বিক্রি করেন।

বেলাল হোসেন জানান, কয়েক মাস আগে তিনি গেন্ডায় বসবাসরত পুলিশ কনস্টেবল মিজানুর রহমানের কাছে থেকে সুদে সাত হাজার টাকা নেন। সাাত হাজার টাকার বিপরীতে প্রতি মাসে এক হাজার টাকা করে সুদ দিতে হয় তাকে।

বেলাল বলেন, আজ সকালে পুলিশ কনস্টেবল মিজানুর সুদের সাত হাজার টাকার জন্য চাপ দেন তাকে। কিন্তু টাকা দিতে কয়েক দিন দেরি হবে জানালে মিজানুর ক্ষুব্ধ হয়ে বেলাল বেধড়ক পেটান। পরে স্থানীয় লোকজন বেলালকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হলে কনস্টেবল মিজানুর পালিয়ে যান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাভার মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার রাসেল শেখ বলেন, চা-বিক্রেতাকে পেটানোর খবর শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে অপরাধ প্রমাণিত হলে দোষীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে গত বুধবার রাতে মিরপুর-১ নম্বর গুদারাঘাটে চাঁদা না পেয়ে মিরপুরের শাহ আলী থানার একদল পুলিশ চা-বিক্রেতা বাবুল মাতব্বরকে চুলার আগুনে দগ্ধ করে। পরে হাসপাতালে মারা যান বাবুল মাতব্বর। এর রেশ না কাটতেই আজ সাভারে এ ঘটনা ঘটল।






মন্তব্য চালু নেই