মেইন ম্যেনু

এবার সৌদিতে কোরান অবমাননার দায়ে এক যুবকের জেল!

সৌদি আরবে ইসলাম বিরোধী টুইট করার অপরাধে এক যুবককে ১০ বছরের জেল দিয়েছে স্থানীয় এক আদালত। পাশাপাশি তাকে দুই হাজারটি দোররা (বেত্রাঘাত) মারারও নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যম বলছে, নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ছয় শ’র বেশি ধর্মবিদ্বেষী পোস্ট প্রকাশ করেছিলেন ২৮ বছর এক সৌদি যুবক। নাস্তিকতার বাণীতে ভরা ছিল তার ওই পোস্টেগুলো। তিনি পবিত্র কুরআর শরীফে বর্ণিত বিভিন্ন আয়াত নিয়েও উপহাস করেছিলেন। শুধু তাই নয়, মিথ্যাবাদী হিসেবে আখ্যা দিয়েছিলেন প্রিয় নবী হজরত মোহাম্মদকে (স.)। তিনি আরো বলেছিলেন, নবীদের বাণীগুলো মিথ্যায় পরপূর্ণ। তারা কেবল যুদ্ধ আর হিংসার বাণী ছড়িয়েছিলেন।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে নজরদারি করার সময় ওই যুবকের টুইটগুলো সৌদি পুলিশের নজরে আসে। ধর্ম অবমাননার আইনে তারা তাকে আটক করে। পরে রাজধানী রিয়াদের এক আদালতে হাজির করা হলে ওই যুবক নিজেকে নাস্তিক বলে দাবি করেন। এমনকি তিনি নিজের ওইসব ইসলাম বিরোধী পোস্টের জন্য অনুতপ্ত হতেও অস্বীকৃতি জানান। প্রত্যেক ব্যক্তির নিজ নিজ বিশ্বাস প্রকাশ করার স্বাধীনতা থাকা উচিত বলেও তিনি দাবি করেন।

বিচারে আদালত তাকে শাস্তি হিসেবে ১০ বছরে কারাদণ্ড ও দুই হাজার দোররা মারার নির্দেশ দেয়। এছাড়া তার বিরুদ্ধে ২০ হাজার রিয়াল জরিমানাও করা হয়েছে।

গত দুই বছর আগে নাস্তিক ও সন্ত্রাসীদের সমান অপরাধী হিসেবে উল্লেখ করে নতুন আইন জারি করেছিলেন মরহুম সৌদি বাদশাহ আবদুল্লাহ।






মন্তব্য চালু নেই